শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪

জেনে নিন, ইসলামে বড় জালেম কে?

প্রকাশিত: ২৮ জুলাই, ২০১৬ ০৪:১৮পিএম | আপডেট: ২৮ জুলাই, ২০১৬ ০৪:১৮পিএম

আল্লাহ তাআলার বিষয়ে এবং সত্য ধর্মের অনুসারী হওয়ার ব্যাপারে পূর্ববর্তী আয়াতে ইয়াহুদি নাসারারা মুসলিমদের সঙ্গে তর্কে লিপ্ত হতো। অতপর আল্লাহ তাআলা বিশ্বনবিকে মুশরিকদের সঙ্গে তর্ক বিদুরিত করে তাঁর ইবাদাতের একনিষ্ঠতার কথা ঘোষণা করার নির্দেশ দেন। অতপর তারা পূর্ববর্তী নবিগণের ব্যাপারে এ কথা বলে বেড়ান যে, তাঁরা ইয়াহুদি ও খ্রিস্টানদের অন্তর্ভূক্ত ছিলেন। এ ব্যাপারে তাদের দাবি খণ্ডন করে আল্লাহ তাআলা তাদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করে বলেন-
 

ইসলাম নিয়ে তর্ক নয়

প্রকাশিত: ২৭ জুলাই, ২০১৬ ০৫:১০পিএম | আপডেট: ২৭ জুলাই, ২০১৬ ০৫:১০পিএম

আল্লাহ তাআলা শুধুমাত্র আমাদের প্রতিপালকই নন, তিনি সমগ্র বিশ্বজগতের প্রতিপালক। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা ইসলামের বিরুদ্ধবাদীদের এ কথাই জানিয়ে দেন যে, তোমরা কি এ কারণেই আমাদের সঙ্গে বিবাদে লিপ্ত যে, আমরা এক আল্লাহর ইবাদাত-বন্দেগি করি। তাঁরই জন্য নিষ্ঠা এবং উদ্যম রাখি; তাঁর আদেশাবলী পালন করি এবং নিষেধাবলী থেকে বিরত থাকি। অথচ তিনি শুধুমাত্র আমাদের প্রতিপালকই নন বরং তিনি তোমাদেরসহ সারা বিশ্ব জাহানের প্রতিপালক। আল্লাহ তাআলা স্বীয় নবিকে মুশরিকদের ঝগড়া বিদুরিত করতে নির্দেশ দিয়েছেন। আল্লাহ তাআলা বলেন-
 

ভয় করতে হবে শুধুমাত্র আল্লাহকেই

প্রকাশিত: ২৫ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০০পিএম | আপডেট: ২৫ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০০পিএম

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‌দোয়া হলো ইবাদাত। আল্লাহ তাআলা কুরআনে ইরশাদ করেছেন, তোমরা আমাকে ডাক, (আমি) তোমাদের ডাকে সাড়া দেব। সুতরাং আল্লাহ তাআলার নিকট কোনো আবেদন-নিবেদন, আকুতি-মিনতি, চাওয়া-পাওয়া গ্রহণযোগ্য করতে তাঁর নিকট দোয়া করা আবশ্যক।

সন্ত্রাসবাদ জঘন্য মহামারী

প্রকাশিত: ২৫ জুলাই, ২০১৬ ০১:২৪পিএম | আপডেট: ২৫ জুলাই, ২০১৬ ০১:২৪পিএম

কূটনৈতিকপাড়া নামে খ্যাত ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্টে জঙ্গিদের হাতে ২০ জন দেশি-বিদেশি প্রাণ হারানোর ঘটনায় দেশবাসী স্তম্ভিত, বেদনাহত ও আতঙ্কগ্রস্ত। একটা ব্যাপার লক্ষ্য করার মতো, নিহত জঙ্গিদের মৃতদেহ তাদের পরিবার নিতে আগ্রহী হয়নি।

অন্যায় থেকে বিরত থাকার পরামর্শকের পুরস্কার

প্রকাশিত: ২৩ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০৭পিএম | আপডেট: ২৩ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০৭পিএম

মানুষকে ভালো কাজের প্রতি আহ্বান করা এবং অন্যায় কাজ থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেয়া বড় একটি ইবাদাতের কাজ। দাওয়াতের এ দায়িত্বপালনের কারণে মানুষ নামাজ, রোজা, হজ ও জাকাতের ন্যায় সাওয়াব ও পুরস্কার লাভ করে। এ পুরস্কারের ধরণ কেমন হবে হাদিসে এর সুস্পষ্ট বর্ণনা এসেছে।

বিরত থাকবেন যে সাতটি কাজ থেকে

প্রকাশিত: ২২ জুলাই, ২০১৬ ০৪:২৪পিএম | আপডেট: ২২ জুলাই, ২০১৬ ০৪:২৪পিএম

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সমগ্র বিশ্ববাসীর জন্য রহমত স্বরূপ পৃথিবীতে আগমন করেছেন। মানুষের জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত দুনিয়ার জিন্দেগিতে প্রয়োজনীয় এমন কোনো দিক নেই, যার দিক-নির্দেশনা তিনি দেননি। মানুষের দুনিয়া ও পরকালের কল্যাণের পথ-নির্দেশের জন্যই আল্লাহ তাআলা তাঁকে সর্বকালের সর্বযুগের সর্বশেষ ও শ্রেষ্ঠ রাসুল করে পাঠিয়েছেন। মানুষের কল্যাণে তিনি অসংখ্য কাজ থেকে বিরত থাকতে বিধি-নিষেধ করেছেন। তাঁর অসংখ্য হাদিস থেকে একটি হাদিস তুলে ধরা হলো-
 

জুমআর দিনকে শ্রেষ্ঠ দিন ঘোষণা বিশ্বনবির

প্রকাশিত: ২১ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০৫পিএম | আপডেট: ২১ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০৫পিএম

সাপ্তাহিক ঈদের দিন মানে জুমআর দিন। এ দিনের ফজিলত অনেক। তাই কোনো মুসলমানের উচিত নয় যে, জুমআর নামাজ থেকে বিরত থাকা। জুমআর দিনকে সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিন ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্বনবি। আবার রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, চার শ্রেণির লোক ব্যতিত জুমআ’র নামাজ ত্যাগ করা কবিরা গোনাহ। চার শ্রেণির লোক হল-

‘জাতীয় ভাবে খুতবা রচনা হবে প্রতি সপ্তাহে’

প্রকাশিত: ২১ জুলাই, ২০১৬ ১২:২১পিএম | আপডেট: ২১ জুলাই, ২০১৬ ১২:২১পিএম

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক জঙ্গি হামলার প্রেক্ষাপটে ইসলামিক ফাউন্ডেশন দেশব্যাপী প্রচারণার পাশাপাশি আলাপে বসছেন ইমাম, ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ধর্ম শিক্ষকদের সাথে।

ইবাদাত কবুল হওয়ার পূর্বশর্ত হালাল রিযিক

প্রকাশিত: ২০ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০২পিএম | আপডেট: ২০ জুলাই, ২০১৬ ০৫:০২পিএম

আল্লাহ তাআলার দরবারে ইবাদাত-বন্দেগি কবুল হওয়ার পূর্বশর্ত হলো হালাল রিযিক। হালাল পথে উপার্জনের মানসিকতা তৈরি ব্যতিত ইবাদাত-বন্দেগিতে পরিপূর্ণ মনোযোগ দেয়া সম্ভব নয়। আর অভাব-অনটনে পড়ে অবৈধ উপায়ে স্বচ্ছলতা লাভ করে তা দ্বারা জীবিকা নির্বাহের মাধ্যমে ইবাদাত-বন্দেগি করলে আল্লাহ তাআলা সে ইবাদাত গ্রহণ করবেন না এবং অসৎ উপায়ে অর্জিত অর্থ খরচ করে ইবাদাত বন্দেগিতে মনোযোগীও হওয়া যায় না।
 

পেরেশানি বেড়ে গেলে যে দোয়া পড়বেন

প্রকাশিত: ১৯ জুলাই, ২০১৬ ০৪:৩০পিএম | আপডেট: ১৯ জুলাই, ২০১৬ ০৪:৩১পিএম

মানুষ যখন বিপদ-আপদের সম্মুখীন হয়; তখন মানুষের উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা এবং পেরেশানি বেড়ে যায়। এ বিপদের মুহূর্তে মানুষ তার করণীয় নির্ধারণে ব্যর্থ হয়ে পড়ে। কারণ সে সময় মানুষের হিতাহিত জ্ঞান থাকেনা। কঠিন বিপদের সময় উৎকণ্ঠা ও পেরেশানি থেকে মুক্তি লাভ করতে হাদিসের একটি আমল তুলে ধরা হলো-