সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

স্ত্রীকে মায়ের বেশি প্রাধান্য দিলে তার ওপর অভিশাপ নেমে আসে

প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:২৬পিএম | আপডেট: ২৯ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:২৬পিএম

পিতামাতার সন্তুষ্টি ব্যতিত কোনো মানুষের কালিমা নসিব হবে না। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাহাবি আলকামাহ’র ঘটনাই তা প্রমাণ করে। ইমাম ফকিহ আবু লাইস সমকান্দি রাহমাতুল্লাহি আলাইহি তাঁর রচিত ‘তাম্বিহুল গাফিলিন’ গ্রন্থে পিতামাতার অসন্তুষ্টিতে ঈমানহীন মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে একটি হাদিস উল্লেখ করেছেন। যা এখানে তুলে ধরা হলো-
 

ঝগড়া বিবাদ প্রসঙ্গে বিশ্বনবি যা বলেছেন

প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট, ২০১৬ ০৭:২১পিএম | আপডেট: ২৯ আগস্ট, ২০১৬ ০১:২২পিএম

ঝগড়া বিবাদ, দ্বন্দ্ব-কলহ মানুষের জন্য অনেক ক্ষতিকর বিষয়। আল্লাহ তাআলা যখন পৃথিবীতে মানুষ সৃষ্টির কথা ফেরেশতাদেরকে জানালেন, তারা আল্লাহর নিকট যে বিষয়টি জানালেন, তাহলো যে, মানুষ দুনিয়াতে ফাসাদ তথা কলহ সৃষ্টি করবে। দুনিয়াতে ঝগড়া বিবাদ বা দ্বন্দ্ব-কলহ অত্যন্ত ঘৃণিত কাজ এবং ফাসাদ সৃষ্টিকারী ব্যক্তি অবশ্যই অপরাধী। তাই রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামও ঝগড়া বিবাদ সৃষ্টিকারী ব্যক্তি সম্পর্কে সতর্ক করে বলেন-
 

শত্রুদের থেকে হিফাজাত থাকার আমল

প্রকাশিত: ২৬ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:০৭পিএম | আপডেট: ২৬ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:০৭পিএম

কুরআন-সুন্নাহর উপদেশ হচ্ছে মানুষ মানুষের উপকার করবে। অমঙ্গল বা ক্ষতি করা থেকে বিরত থাকবে। তারপরও মানুষ মানুষের সঙ্গে শত্রুতা ও বিদ্বেষ পোষণ করে থাকে। কারণ মানুষের প্রকাশ্য দুশমন হলো শয়তান। সে মানুষকে অন্যায় ও ক্ষতির পথে পরিচালিত করতে কঠিন প্ররোচনা দিয়ে থাকে। আল্লাহ তাআলা সুরা নাস-এর মাধ্যমে এ বিষয়ে মানব জাতিকে সতর্ক করেছেন। মানুষ শয়তান এবং জিন শয়তান থেকে তাঁর নিকট আশ্রয়ের প্রার্থনার পদ্ধতি শিখিয়েছেন।
 

বিশ্বনবির যে উপদেশ মানলে জীবন বদলে যাবে

প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:১৮পিএম | আপডেট: ২৫ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:১৮পিএম

বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সমগ্র জাতির জন্য মহান শিক্ষক ও পথ-প্রদর্শক হিসেবে এ পৃথিবীতে আগমন করেছেন। মানুষের কল্যাণে অক্লান্ত শ্রম দিয়েছেন। দুনিয়া ও পরকালীন জীবনে উত্তম প্রতিদান লাভের পাথেয় হিসেবে বিশ্বনবির একটি অমূল্য হাদিস তুলে ধরা হলো-
 

মিনারে গিয়ে হাজিরা যা করবেন

প্রকাশিত: ২৩ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:২৭পিএম | আপডেট: ২৩ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:২৭পিএম

হজ শারীরিক ও আর্থিক সামর্থ্যবানদের ওপর ফরজ ইবাদাত। ফরজ হজ পালনে সমগ্র বিশ্ব থেকে মুসলিম উম্মাহ পবিত্র নগরী মক্কায় উপস্থিত হন। যারা ইফরাদ ও ক্বিরান হজ আদায়ের নিয়ত করে বাইতুল্লায় অবস্থান করছেন। তারা ৭ই জিলহজ মসজিদে হারামে (বাইতুল্লায়) হজ সম্পর্কিত খুতবা শ্রবণ করে ঐ দিন বিকাল থেকে পর দিন ৮ই জিলহজ জোহরের নামাজের আগেই মিনায় উপস্থিত হবে।

কুরআন জীবনের সফলতার পথ দেখায়

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:০৭পিএম | আপডেট: ২২ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:০৭পিএম

আল্লাহ তাআলা পবিত্র গ্রন্থ কুরআন নাজিল করছেন যে, তাঁর বান্দাগণ নিয়মিত কুরআন তিলাওয়াত করবে; কুরআনের অর্থ ও ভাব অনুধাবন করবে এবং কুরআনের নির্দেশনা অনুযায়ী আমল করবে। কুরআনে উল্লেখিত ঐতিহাসিক ঘটনাসমূহ থেকে শিক্ষা গ্রহণ করবে এবং প্রত্যেক ব্যক্তিই কুরআন থেকে ইহকাল ও পরকাল সম্পর্কিত বিষয়াবলীর সঠিক দিক-নির্দেশনা গ্রহণ করবে।

‘ব্যাগ-আইডির নামে ১৩ কোটি টাকা হাতিয়েছে হাব’

প্রকাশিত: ২১ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:০৩পিএম | আপডেট: ২১ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:৫৪পিএম

হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এবং মহাসচিবের বিরুদ্ধে ১২ কোটি ৫৯ লাখ ৫০ হাজার ৪০০ টাকা দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছে হজ ওমরাহ এজেন্সিস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ।

তিনটি কাজের ফলাফল সুনিশ্চিত

প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:১৩পিএম | আপডেট: ১৯ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:১৩পিএম

যখন কোনো ব্যক্তি অন্যায়ভাবে কাউকে অত্যাচার করে, বিনা অপরাধে বকাবকি করে; তখন তাঁর অত্যাচার এবং বকাবকির প্রতি উত্তরে ফেরেশতাগণ এ অন্যায় কাজের প্রতিবাদ করে থাকেন। এ প্রসঙ্গে ইমাম আবুল লাইছ সমরকান্দি রাহমাতুল্লাহি আলাইহি তাঁর ‘তাম্বিহুল গাফেলিন’-গ্রন্থে হাদিসের একটি ঘটনা তুলে ধরেছেন। যেখানে তিনটি কাজের সুনিশ্চিত ফলাফল লাভের দিক-নির্দেশনাও রয়েছে। তা এখানে তুলে ধরা হলো-

বেনামাজির ৯টি কঠিন শাস্তি

প্রকাশিত: ১৮ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৪৩পিএম | আপডেট: ১৮ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৪৩পিএম

ইসলাম ধর্মে নামাজকে ফরজ করা হয়েছে। তাই ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা প্রতিদিন পাঁচ ওয়াক্ত ফরয নামাজ আদায়ের পাশাপাশি সুন্নাত ও বিভিন্ন নফল ইবাদত করে থাকেন। তবে এমন অনেক মুসলমান আছে যারা মুসলিম হয়েও নিয়মিত কিংবা কখনোই নামাজ আদায় করে না। নামাজ পরিত্যাগ করা এই সকল মানুষদের জন্য পরকালে অপেক্ষা করছে কঠিন আযাব। নামাজ পরিত্যাগের জন্য কঠিন শাস্তির হুমকি এসেছে কুরআন ও হাদিসে। বেনামাজিদের মূলত ৩টি ধাপে পর্যায়ক্রমে দেয়া হবে ৯টি শাস্তি।
 

অধিক পরিমাণে জিকিরকারীরাই বিজয়ী

প্রকাশিত: ১৬ আগস্ট, ২০১৬ ০৮:৩০পিএম | আপডেট: ১৭ আগস্ট, ২০১৬ ১১:১৭এএম

আল্লাহ তাআলা কুরআনে ইরশাদ করেন, ‌‘অতএব তোমরা আমাকে স্মরণ কর আমিও তোমাদেরকে স্মরণ করব।’ বান্দা কেন আল্লাহ তাআলাকে স্মরণ করবে? তাঁকের স্মরণের তাৎপর্যই বা কী? এ সম্পর্কে হাদিসের অসংখ্য বর্ণনা রয়েছে। তা থেকে কিছু বর্ণনা তুলে ধরা হলো-

সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩