মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

অস্ট্রেলিয়ার সামনে আজ ভয়ডরহীন আফগানিস্তান

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০১ জুন ২০১৯, শনিবার ০১:৩৭ এএম

অস্ট্রেলিয়ার সামনে আজ ভয়ডরহীন আফগানিস্তান

ছবি সংগৃহীত

ঢাকা: নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এক বছর পর জাতীয় দলে ফিরেছেন ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভ স্মিথ। তাই ফোকাসটা তাঁদের দিকেই সব থেকে বেশি থাকবে গোটা অস্ট্রেলিয়াসহ গোটা ক্রিকেট বিশ্বের। যদিও বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার  প্রথম প্রতিপক্ষ কিছুটা হলেও পিছিয়ে। শনিবার দ্বিতীয় ম্যাচে ব্রিস্টলের কাউন্টি গ্রাউন্ডে মুখোমুখি হতে চলেছে অস্ট্রেলিয়া-আফগানিস্তান।বাংলাদেশ সময় ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। 

স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার দু'জনেই নিজেদের প্রমান করেই জাতীয় দলে জায়গা করে নিয়েছেন। প্রস্তুতি ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন স্মিথ। ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে এসেছে ৪৩ রান। তার আগেই আইপিএলে সর্বোচ্চ রান করেই বিশ্বকাপের শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর চোট একটু চিন্তায় রেখেছিল টিম ম্যানেজমেন্টকে। তবে তিনি সুস্থ হয়েই প্রথম ম্যাচে খেলতে নামবেন।

গত বছরটা মোটেও ভাল যায়নি গতবারের চ্যাম্পিয়নদের। শেষ পর্যন্ত অ্যারন ফিঞ্চের নেতৃত্বাধীন দল নিজেদের ফিরে পেয়েছে সঠিক সময়েই। নিজেদের দেশের মাটিতে ভারতের কাছে হারের পর ভারতে এসে সিরিজ জিতে ফিরেছিল অস্ট্রেলিয়া গত মার্চে।

অস্ট্রেলিয়ার পেস আক্রমণ সব দলের মাথা ব্যথার কারন হতে পারে। প্যাট কামিন্সের নেতৃত্বে ব্যাটসম্যানদের রাতের ঘুম কেড়ে নিতে পারেন মিচেল স্টার্ক, জেসন বেহেনড্রফ, নাথান কুল্টার-নাইল ও কেন রিচার্ডসন। স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা ও নাথান লায়ন অস্ট্রেলিয়ার বোলিং আক্রমণে বৈচিত্র্য আনবে। যা ইংল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচে প্রমাণ করে দিয়েছে।

ব্রিস্টলে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ফেভারিট হিসেবেই যে অস্ট্রেলিয়া নামবে তা নিয়ে কোনও সংশয় নেই। পাঁচবারের বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়নরা হঠাৎ করেই জায়গা করে নিয়েছে এ বারের ফেভারিটের তালিকায়। আফগানিস্তান সেদিক থেকে দেখতে গেলে এই নিয়ে দ্বিতীয় বিশ্বকাপ খেলতে চলেছে।

দু'মাস আগেই অধিনায়ক পরিবর্তন করা হয়েছে আফগানিস্তানের। আসঘর আফগানের পরিবর্তে নেতৃত্বভার তুলে দেওয়া হয়েছে গুলবাদিন নাইবের হাতে। যা অনেক সিনিয়র খেলোয়াড়ই মেনে নিতে পারেননি। কিন্তু এখন এসব ভুলে বিশ্বকাপের লড়াইয়ে মন দিতে চাইছে গোটা দল। আর আফগানরা শুরু থেকেই ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলে আসছে। 

যেকোনো বড় দলকে হারিয়ে দেওয়ার সক্ষমতা দলটির আছে। প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়েছে আফগানিস্তান। সেদিক থেকে বিবেচনা করে আফগানরা চ্যালেঞ্জ জানাতে পারে অস্ট্রেলিয়াকে। রশিদ খান-মোহাম্মদ নবীরা জ্বলে উঠলে যেকোনো কিছুই ঘটিয়ে ফেলতে পারে আফগানিস্তান।

সোনালীনিউজ/আরআইবি/জেডআই