মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট, ২০২০, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭

আক্তার হোসেন কখনো সেনা আবার কখনো পুলিশ কর্মকর্তা

নড়াইল প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার ০৯:৩২ পিএম

আক্তার হোসেন কখনো সেনা আবার কখনো পুলিশ কর্মকর্তা

নড়াইল : নড়াইলে টাকার বিনিময়ে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেয়ার প্রলোভনে আক্তার হোসেন (৫৩) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। 

রোববার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার) সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন। 

আটককৃত আক্তার নড়াইল সদরের মধুরগাতি গ্রামের সুলতান আহমেদ ফকিরের ছেলে। 

পুলিশ সুপার আরো জানান, নড়াইল পৌরসভার ভাটিয়া এলাকার তপন মজুমদারের ছেলে জয় মজুমদারকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকরি দেয়ার কথা বলে আক্তার হোসেন প্রতারণার চেষ্টা করছিল। অপকৌশলে সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তার স্বাক্ষর সম্বলিত ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে ভেরিফিকেশনের জন্য পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পাঠায়। বিষয়টি সন্দেহ হলে সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাকে তদন্ত করতে বলেন তিনি (পুলিশ সুপার)। একপর্যায়ে প্রতারণার বিষয়টি বেরিয়ে আসে। 

এরপর শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) গভীর রাতে মধুরগাতি এলাকা থেকে আক্তারকে আটক করে ডিবি পুলিশ। তার কাছ থেকে সেনাবাহিনীতে চাকরির ভুয়া দুটি আবেদন, পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাগজপত্রসহ বিভিন্ন কাগজপত্র জব্দ করা হয়েছে। আটককৃত আক্তার এরআগেও এ ধরণের প্রতারণার সঙ্গে জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন।  

এদিকে ভূক্তভোগী জয় মজুমদারের আত্মীয় চন্দন কুমার ষোঘ জানান, পাঁচ লাখ টাকার বিনিময়ে আক্তার হোসেন তার আত্মীয় জয়কে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেয়ার কথা বলে প্রতারণার চেষ্টা করছিল। এরই ধারাবাহিকতায় সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তার স্বাক্ষর সম্বলিত ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে ভেরিফিকেশনের জন্য পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পাঠায়। বিষয়টি পুলিশ সুপারকে অবগত করা হয়। 

সোনালীনিউজ/এফকে/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue