মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর, ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭

আবারও প্রশ্নবিদ্ধ নারাইনের বোলিং অ্যাকশন

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১১ অক্টোবর ২০২০, রবিবার ০৩:৩২ পিএম

আবারও প্রশ্নবিদ্ধ নারাইনের বোলিং অ্যাকশন

ঢাকা: আইপিএলে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর জয়ের পরেও স্বস্তিতে নেই কলকাতা নাইট রাইডার্স। শেষ ওভারে যে সুনীল নারাইনের বোলিং জেতাতে ভূমিকা রাখলো, সেই অফস্পিনারই রিপোর্টেড হয়েছেন অবৈধ বোলিং অ্যাকশনে।

২ রানে জেতা ম্যাচটায় বল হাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল তার। ২৮ রানে নিয়েছেন ২ উইকেট।

নারাইনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন অনফিল্ড আম্পায়াররা। আইপিএল বিবৃতিতে বলেছে, ‘নারাইনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন উলহাস গান্ধে ও ক্রিস গ্যাফানি।’

অভিযোগ আনা হলেও এই মুহূর্তে তিনি সতর্কতামূলক তালিকায় আছেন। তবে যতক্ষণ না দ্বিতীয়বার রিপোর্টেড হচ্ছেন, ততক্ষণ বোলিং করতে কোনও বাধা নেই। তবে আবার অভিযোগ উঠলে তিনি আর বল করতে পারবেন না। সেক্ষেত্রে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের অনুমতি পেলেই বোলিংয়ে নামতে পারবেন।   

সুনীল নারাইনের জন্য এমন অভিযোগ নতুন নয়। ক্যারিয়ারে বেশ কয়েকবারই এমন অভিযোগে নিষিদ্ধও হতে হয়েছে তাকে। ২০১৫ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডের পর তার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠে। আন্তর্জাতিক কোনও ম্যাচে সেবারই প্রথম রিপোর্টেড হন ক্যারিবীয় এই স্পিনার। আগের বছর ২০১৪ সালে বিলুপ্ত চ্যাম্পিয়নস লিগ টি-টোয়েন্টিতেও একই অভিযোগ উঠে তার বিরুদ্ধে। যে কারণে কলকাতার হয়ে ফাইনালেও খেলতে পারেননি।  

এর পর অ্যাকশন শুধরে ফিরলেও ২০১৫ বিশ্বকাপ খেলেননি। তার ধারণা ছিল, অ্যাকশন পাল্টে মাঠে ফেরাটা খুব বেশি দ্রুত হয়ে যাবে।

অবশ্য এর পরেও বিতর্ক মুক্ত থাকতে পারলেন কই? ২০১৫ সালের আইপিএলে আবারও তার বোলিং অ্যাকশন নিয়ে অভিযোগ তোলেন আম্পায়াররা। এর পর পর অনুমতি পেলেও আবার অভিযোগ উঠলে অ্যাকশনের পরীক্ষা দিতে হয় তাকে। যে কারণে আবারও নিষিদ্ধ হন বোলিংয়ে। যদিও সতর্ক করে বোলিংয়ে ফেরার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল এর পর। এছাড়া ২০১৮ সালে পাকিস্তান সুপার লিগেও রিপোর্টেড হয়েছেন তিনি।

সোনালীনিউজ/টিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue