শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৩০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

আ. লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম হিরণকে গণপিটুনি!

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৮ নভেম্বর ২০১৮, রবিবার ০৫:৩৯ পিএম

আ. লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম হিরণকে গণপিটুনি!

শহিদুল ইসলাম হিরণ

ঝিনাইদহ : বিএনপি, জামায়াত ও আওয়ামী লীগের এক পক্ষকে মারধর করার হুমকি দিয়ে ফেসবুকে ভিডিও ভাইরাল করা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেই শহিদুল ইসলাম হিরণ নিজেই গণপিটুনির শিকার হয়েছেন। শনিবার (১৭ নভেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার মধুপুর চৌরাস্তার মোড়ে তাকে মারধর করা হয়। এ সময় তার সহযোগী চাপড়ি গ্রামের রিপন মেম্বার, বরইখালী গ্রামের আব্দুল হান্নান ও আজিজুল আহত হন। ঘটনার দিন রাত ১টার দিকে তিনি ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করেন। গণপিটুনির শিকার হিরণ সদর উপজেলার আড়ুয়াকান্দি গ্রামের মৃত আবুল কালাম মুন্সির ছেলে।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের রাত্রিকালীন চিকিৎসক ডা. শাহিন খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শনিবার রাত ১টার দিকে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পোড়াহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেই শহিদুল ইসলাম হিরণ কয়েকজন সঙ্গীসহ হাসপাতালে এসে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে যান। হিরণ চেয়ারম্যানের ডান হাটু ও ডান হাতের হিপ জয়েন্টসহ বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন ছিল। ঝিনাইদহ সদর থানা যুবলীগের আহবায়ক শাহ মোহাম্মাদ ইব্রাহীম খলিল রাজা মুঠোফোনে জানান, শনিবার রাতে পোড়াহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম হিরণ বেআইনিভাবে জনতা নিয়ে মধুপুর এলাকায় অবস্থান করছিলেন। খবর পেয়ে কে বা কারা সেখানে এসে তাকে গণপিটুনি দেয়। এ সময় ২০/২৫ জন আহত হন। তবে তারা প্রশাসনের লোক নাকি কোনো প্রতিপক্ষ গ্রুপ তা যুবলীগ নেতা রাজা বলতে পারেননি।

ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, তারা নিজেরা নিজেরা নাকি অন্য কারো সঙ্গে গন্ডগোল করেছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, শহিদুল ইসলাম হিরণ তো ভর্তি হননি। এটা আমি জানি।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম হিরণের জনসভার অশ্লীল বক্তৃতা দেওয়া ভিডিও ফুটেজ ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। তিনি সাধুহাটি, হলিধানী বাজার, হাটগোপালপুর, মধুপুর, গোয়ালপাড়াসহ বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে জনসভায় বিএনপি ও আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ গ্রুপকে মারধর করে ঠ্যাং ভাঙ্গে পুলিশ দিয়ে গ্রেপ্তার করানোর হুমকি দেন। হিরণ চেয়ারম্যানের অশ্লীল বক্তৃতার ভিডিও ফুটেজ আওয়ামী লীগ নেতা ফারুকুজ্জামান ফরিদ তার ফেসবুকে দিলে তা মুহূর্তের মধ্যে দেশ-বিদেশে ভাইরাল হয়ে যায়। বক্তব্য জানতে মারধরের শিকার শহিদুল ইসলাম হিরণের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলে তার নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এইচএআর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue