শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

এবার ‘ফাইনাল দুঃখ’ ঘোচাতে পারবেন মাশরাফি?

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৭ মে ২০১৯, শুক্রবার ০১:১৩ এএম

এবার ‘ফাইনাল দুঃখ’ ঘোচাতে পারবেন মাশরাফি?

ঢাকা : বাংলাদেশের কাছে ফাইনাল যেন ‍যন্ত্রণার আরেক নাম। এর আগে ছয়বার ফাইনালে জয়ের খুব কাছে গিয়ে ঘুরে আসতে হয়েছে। আবার আরেকটি ফাইনালে শুক্রবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হতে চলেছে বাংলাদেশ। এই ফাইনালের আগেও একটাই প্রশ্ন, এবার ‘ফাইনাল দুঃখ’ ঘোচাতে পারবে মাশরাফির দল? এই প্রশ্নের উত্তর জানতে আর মাত্র কয়েক ঘন্টার অপেক্ষা। বাংলাদেশ সময় ফাইনাল ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল ৩.৪৫ মিনিটে।

যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে ফাইনাল প্রাথমিক পর্বে তাদের দু’বার হারিয়েছে বাংলাদেশ। ৮ ও ৬ উইকেটের জয়ে মাশরাফিদের ছিল একচ্ছত্র আধিপত্য। সাদা চোখে দেখলে তাই ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে এই ফাইনাল জিততে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। কিন্তু ম্যাচটা যেহেতু ফাইনাল তাই শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। আর কে জানে, দু ম্যাচে অমন বাজে হারের পর মোক্ষম সময়ই হয়তো কাজের কাজটি করে দেবেন জেসন হোল্ডারের দল!

তবে ফাইনালের আগে টিম ম্যানেজম্যান্ট চেষ্টা করে যাচ্ছে, এই ম্যাচটাকে ক্রিকেটাররা যেন আরেকটি ম্যাচ হিসেবেই দেখে, ফাইনাল না মনে করে। কারণ ওই ‘ফাইনাল’ শব্দটির মধ্যেই তো যাবতীয় ভয়!

২০০৯-এ ত্রিদেশীয় সিরিজের পর ২০১২, ২০১৬ ও ২০১৮ এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু প্রতিটা এপিসোডেই লেখা হয়েছে হারের গল্প। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে কলম্বোতে নিদাহাস ট্রফিটা বাংলাদেশ জিতেই গিয়েছিল। কিন্তু দিনেশ কার্তিক এমন এক ইনিংস খেললেন যা তাঁকে ভারতে নায়ক বানিয়ে দিল। এই ফাইনালগুলোর কথা কেউ ভোলেননি। আর মাশরাফির তো আরও ভোলার কথা নয়। তারপরও বাংলাদেশ অধিনায়ক ফাইনালের কথা মনেই করতে চাইছেন না।

বৃহস্পতিবার মাশরাফি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘গত এশিয়া কাপে সাকিব-তামিম ছিল না, তবুও মনে হচ্ছিল, ম্যাচটা অনেক কাছাকাছি গিয়েছিলাম। এমন আরও একটা এশিয়া কাপের ফাইনালের খুব কাছে গিয়েছিলাম। কয়েকটা ফাইনাল খুব কাছে গিয়ে হেরে যাওয়ায় মনে হয়েছে মানসিকভাবে আমাদের একটা বাধা আছে, ফাইনালে যেটা প্রভাবিত করে। এ কারণে মিটিংয়ে আজ (১৬ মে) ফাইনাল নিয়ে আলোচনা করিনি। অন্য ম্যাচগুলো যেভাবে খেলি, যেভাবে মিটিং করি, ওভাবেই করছি। ছেলেদের মধ্যে এই ভাবনাটা যেন না আসে যে ফাইনাল খেলছি, যতটুকু এড়িয়ে চলা যায়, সে চেষ্টা করছি।’

এই মানসিক বাধা দূর হবে কবে? মাশরাফি জানালেন একটা ফাইনাল জেতার কথা,‘ যতক্ষণ না কোনো ফাইনাল বা ট্রফি জিতছেন না, এ মানসিক বাধা থাকবেই। যতবারই ফাইনাল হারবেন, আরেকটা ফাইনালে উঠে এ চিন্তাটা থাকবেই। এটা যখন কেটে যাবে, তখন খুব স্বাভাবিক, ফাইনাল জেতার তীব্র তাড়না কমে যাবে। যখন মানুষের কিছু পাওয়ার ইচ্ছে কমে যায়, ওটা ঘিরে খারাপ চিন্তাগুলোও দূরে থাকে। সিরিজ আপনি অনেক জিতেছেন। সিরিজ জেতা নিয়ে কঠিন চাপ তাই অনুভব করেন না। একটা ফাইনাল জিতলে দেখবেন সামনে দ্রুত আরও কিছু ফাইনাল জিতে গেছেন।’

সোনালীনিউজ/আরআইবি/এমটিআই

 

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue