বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই, ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭

করাচিতে লঙ্কান বোলারদের কচুকাটা করলেন ভিভ রিচার্ডস

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৭ মে ২০১৯, শুক্রবার ০৬:১৩ পিএম

করাচিতে লঙ্কান বোলারদের কচুকাটা করলেন ভিভ রিচার্ডস

ঢাকা : আগের তিনটি বিশ্বকাপে ক্রিকেট শাসন করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ভিভ রিচার্ডসের নেতৃত্বে উপমহাদেশে ১৯৮৭ বিশ্বকাপ খেলতে এসে শুরুটা উজ্জ্বল হয়নি ক্যারিবিয়ানদের। ইংলিশদের কাছে রিচার্ডসের দল হেরে গিয়েছিল প্রথম ম্যাচেই। অবশ্য শ্রীলংকার বিপক্ষে দুর্দান্ত প্রতাপে ফেরে উইন্ডিজ। আর এটা কিংবদন্তি ভিভের সৌজন্যেই।

তবে লঙ্কানদের বিরুদ্ধেও উইন্ডিজের শুরুটা হয়েছিল বাজে। রবি রত্নানায়েকে প্রথম বলেই কট বিহাইন্ড করলেন রিচি রিচার্ডসনকে। ৪৫ রানে দুই উইকেট হারানোর পর উইকেটে আসেন ভিভ। আগের ম্যাচে ইংল্যান্ডের সঙ্গে ২৭ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলেন তিনি। যদিও ওই ম্যাচে দলকে পরাজয়ের হাত থেকে বাঁচাতে পারেননি। কিন্তু করাচির ন্যাশনাল স্টেডিয়াম দেখল অন্য ভিভকে। যিনি প্রতিপক্ষ বোলারদের কচুকাটা করে গেলেন!

শুরুটা করেছিলেন ভিভ একটু রয়েসয়ে। ম্যাচের দৈর্ঘ্য যত বাড়ে ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তির ব্যাটের ধার তত বাড়ে। লঙ্কান বোলারদের পাড়ার বোলারদের কাতারে নামিয়ে এনে ভিভ ৯৭ বলে তুলে নিলেন ক্যারিয়ারে দশম সেঞ্চুরি। সেই সময় এত কম বলে সেঞ্চুরি দেখে সবার চোখ কপালে উঠে গিয়েছিল! ব্যাটসম্যানের নাম ভিভ বলেই এমনটা সম্ভব হয়েছে। তারপর যেটা হলো সেটা গোটা ক্রিকেট বিশ্বের কাছেই বিস্ময় ঠেকেছে! ভিভ পরের ৮১ রান করলেন মাত্র ৩৩ বলে। যেটা আজকের দিনেও বেশ কঠিন! সেটা ভিভ করে দেখিয়েছেন ১৯৮৭ সালের ১৩ অক্টোবর।

তখন বোলারদের কাছে মূর্তিমান আতঙ্কের নাম ছিলেন স্যার ভিভ রিচার্ডস। এদিন তার ব্যাট থেকে ১৮১ রানের ইনিংস এসেছে ১২৫ বলে ১৬ চার আর সাত ছক্কায়। স্ট্রাইক রেট ১৪৪.৮০। ওপেনার ডেসমন্ড হেইন্সও (১০৫) পান সেঞ্চুরির দেখা। আর তাতেই উইন্ডিজের স্কোরবোর্ডে ওঠে ৩৬০/৪ রান। রত্নানায়েকে ৬৮ রানে ২টি, গুরুসিনহা ৪৩/১, অশান্ত ডি মেল ৯৭ রানের বিনিময়ে পান ১ উইকেট।  

৩৬০ রান তাড়া করতে যেমন শুরুটা হওয়া দরকার লঙ্কানরা সে পথেই গেল না। অতিমাত্রায় রক্ষণাত্মক মনোভাবে তারা বুঝিয়ে দিলেন টেস্ট ক্রিকেট থেকে মাত্রই ওয়ানডের যাত্রা শুরু হলো! লঙ্কানরা পুরো ৫০ ওভার ব্যাট করলেন, উইকেটও হারালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সমান ৪টি। কিন্তু স্কোরবোর্ডে  রান উঠলো কত জানেন? ১৬৯। অর্জুনা রানাতুঙ্গা ৯৩ বলে ৫২, মেন্ডিস ৪৫ বল খেলে অপরাজিত থাকলেন ৩৭ রানে। কার্ল হুপার ৩৯ রানে পান ২ উইকেট।

ম্যাচসেরা ভিভ এর তিন বছর আগে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ১৮৯ রানের ইনিংস খেলেন। যদি তিনি ইনিংসের শেষ ওভারগুলোতে মিস হিট না করতেন তাহলে ওয়ানডেতে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি দেখল ভিভের কল্যাণেই। পরে যেটি প্রথম করে দেখিয়েছেন লিটল মাষ্টার শচীন টেন্ডুলকার।

 সোনালীনিউজ/আরআইবি/এমটিআই