মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

কাঁচা চামড়া বিদেশে রফতানির পক্ষে জিএম কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার ১২:২৩ এএম

কাঁচা চামড়া বিদেশে রফতানির পক্ষে জিএম কাদের

ঢাকা : জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, ‘কাঁচা চামড়া বিদেশে রফতানি করা উচিত। চামড়া ব্যবসায়ীদের প্রতিযোগিতা করেই ব্যবসা করতে হবে।

শুক্রবার (১৬ আগস্ট) দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

জি এম কাদের বলেন, চামড়া বিদেশে রপ্তানি চালু রাখা উচিত। যারা চামড়ার ব্যবসা করতে চায়, তাদের প্রতিযোগিতা করেই ব্যবসা করতে হবে।

ঢাকায় এবার প্রতি বর্গফুট গরুর কাঁচা চামড়া ৪৫ থেকে ৫০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় কেনার কথা ট্যানারি ব্যবসায়ীদের। আর খাসির কাঁচা চামড়া সারাদেশে ১৮-২০ এবং বকরির চামড়া ১৩-১৫ টাকা দরে কেনাবেচা হওয়ার কথা।

বাংলাদেশের ২২০টি ট্যানারি থেকে বছরে প্রায় ২৫০ কোটি বর্গফুট কাঁচা চামড়া (হাইড ও স্কিন) প্রক্রিয়াজাত করা হয়। এই চামড়ার মধ্যে ৭৬ শতাংশের বেশি রপ্তানি করা হয়।

এবার ঈদের দিন থেকেই সরকারের বেঁধে দেওয়া দামের চেয়ে কম দামে চামড়া কেনা হচ্ছে বলে অভিযোগ আসতে থাকে। ট্যানারি মালিকরা বকেয়া থাকা টাকা দেননি- এই যুক্তি দেখিয়ে আড়তদাররা চামড়া কেনা বন্ধ রাখলে সঙ্কট মারাত্মক আকার ধারণ করে।

চামড়া সংরক্ষণের নিজস্ব কোনো ব্যবস্থা ফড়িয়া আর মৌসুমী ব্যবসায়ীদের থাকে না। ফলে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে নামমাত্র দামে চামড়া কিনেও পাইকারদের কাছে বিক্রি করতে না পেরে তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন।

অনেক স্থানে মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া নদী বা রাস্তায় ফেলে দিয়েছেন, কোথাও চামড়া মাটিতে পুঁতে ফেলার ঘটনাও ঘটেছে।

চামড়া রপ্তানির সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন বলছে, কাঁচা চামড়া রপ্তানি করা হলে চামড়া শিল্প নগরীতে সাত হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ ঝুঁকির মুখে পড়বে।

আর বাংলাদেশ ফিনিশড লেদার অ্যান্ড লেদারগুডস এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন বলেছে, কাঁচা চামড়া রপ্তানির অনুমতি দিলে এ খাত ধ্বংস হয়ে যাবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, কোরবানির পশুর চামড়া বিক্রি করে মানুষ যে দাম পাচ্ছে, সেটা ‘যৌক্তিক না’। মানুষ যেন ন্যায্য দাম পায় তা নিশ্চিত করতেই সরকারের এ পদক্ষেপ।

এর সঙ্গে সহমত জানিয়ে সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী জি এম কাদের বলেন, কোরবানির পর প্রকৃত মূল্য পেতে যথেষ্ট বিক্রেতা ও ক্রেতা থাকতে হয়। কাঁচা চামড়া বেশি দিন রাখা যায় না । এখন বিদেশে রপ্তানি করতে দেওয়া না হলে যে কোনো মূল্যে মুষ্টিমেয় ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করতে হবে চামড়া।

সরকার চামড়া ব্যবসায়ীদের প্রণোদনা দিলেও তাতে যেন এতিমদের ‘হক নষ্ট না হয়’ সেদিকে লক্ষ্য রাখার অনুরোধ জানান জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue