বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

কারাগারেই অনিক ও সরকারকে গণধোলাই

আদালত প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৩ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার ০১:২২ পিএম

কারাগারেই অনিক ও সরকারকে গণধোলাই

ঢাকা : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার অন্যতম আসামি অনিক সরকারকে কারাগারে পিটিয়েছে আসামিরা।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে গ্রেফতারের পর রিমান্ড শেষে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার পর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছতেই ক্ষুব্ধ বন্দীরা হামলে পড়ে অনিকের ওপর। কারারক্ষীদের প্রাণান্তকর চেষ্টায় রক্ষা পান অনিক।

শনিবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে এ ঘটনা ঘটেছে। কারাগারের কেন্দ্রীয় হাসপাতালে আহতদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। চিকিৎসার পর দুজনকে পৃথক সেলে রাখা হয়েছে।

কারাসূত্র বলেছে, ফাহাদ হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার বুয়েটের ছাত্র সকাল ও অনিক সরকার ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হাতে গ্রেফতারের পর রিমান্ড শেষে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। এরপর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছতেই ক্ষুব্ধ বন্দিরা হামলে পড়ে দুজনের ওপর। কারাবন্দিরা দুজনকে মারধর করে। এসময় পাহারায় থাকা কারারক্ষীদের চেষ্টায় রক্ষা পান অনিক ও সকাল।

সূত্র জানায়, ফাহাদের নির্মম মৃত্যু মেনে নিতে পারেননি কারাবন্দি কয়েদি ও হাজতিরা। মদ্যপ অবস্থায় অনিক কয়েক দফায় ফাহাদকে মারধর করেছিল। গণমাধ্যমে এ হত্যাকাণ্ডের খুঁটিনাটি জানতে পারেন কারাবন্দিরাও। ঘটনার পরদিনই অনিক ও সকালকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ।

পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। প্রথম দফা রিমান্ড শেষে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ডে নেয়ার প্রস্তুতি নিয়ে আদালতে পাঠায় পুলিশ। তবে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি দেয় দুজন।

ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলামের আদালতে জবানবন্দি শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় কেরানীগঞ্জ কারাগারে দুজনকে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রধান ফটক দিয়ে তারা কারাগারে প্রবেশ করে। সেখান থেকে কারাগারের আমদানি সেলে ঢোকার সময়ই দুজনকে মারধর করেন কারাবন্দিরা। পরে তাদের অন্যত্র সরিয়ে নেয় কারা কর্তৃপক্ষ। যদিও এ বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার না করে তা গোপন করছে কারা কর্তৃপক্ষ।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue