শনিবার, ২০ জুলাই, ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

কুলাউড়ায় দুর্ঘটনা কবলিত বগি উদ্ধার

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৯ জুন ২০১৯, শনিবার ০৭:২৯ পিএম

কুলাউড়ায় দুর্ঘটনা কবলিত বগি উদ্ধার

মৌলভীবাজার : মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বরমচালে বড়ছড়া সেতুর নিচে পড়ে থাকা ট্রেনের বগিটি অবশেষে উত্তোলন করা হয়েছে। গত দুই দিনের ভারি বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি প্রবল ঢলের কারণে ছড়ায় পানি বৃদ্ধি পায়। দুর্ঘটনায় ছড়ায় পতিত বগির কারণে পানি প্রবাহে বিঘ্ন ঘটে। এতে সেতুর নিচের মাটি সরে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত বগিটি অপসারণে নামে রেলওয়ে বিভাগ।

শনিবার (২৯ জুন) বগি অপসারণ করার জন্য ভোর ৫টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত উদ্ধার কর্মীরা কাজ করে।  এ সময় সারা দেশের সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ রাখা হয়। প্রায় সাড়ে ৮ ঘণ্টা পর সেতুর নিচে পড়ে থাকা বগি সরিয়ে ফের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করে দেওয়া হয়।

এ সময় সকাল ৭টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা আন্ত:নগর কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনটি মাইজগাঁও রেলওয়ে স্টেশনে আটকা পড়ে। এছাড়া ঢাকাগামী আন্ত:নগর জয়ন্তিকা  এক্সপ্রেস ট্রেনটিও সিলেট থেকে ছেড়ে আসেনি।

অপর দিকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা আন্ত:নগর পারাবত এক্সপ্রেস, উদয়ন এক্সপ্রেস, লোকাল কুশিয়ারা, সুরমা মেইল, জালালাবাদ ট্রেনও বিভিন্ন স্টেশনে আটকা পড়ে। চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনটি কুলাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে আটকা পড়ে।

এদিকে দুর্ঘটনা কবলিত বগিগুলোতে পাওয়া যাত্রীদের মালামাল পৌঁছে দিতে এগিয়ে এসেছেন স্থানীয়রা।

বরমচাল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ইসহাক চৌধুরী ইমরান জানান, শনিবার দুপুরে আল মুহতাসিম সুজন নামের ইসলামিক ইউনিভার্সিটি ও টেকনোলজির এক শিক্ষার্থীর ব্যাগ কুরিয়ার করে পৌঁছে দিয়েছি।

ইউপি সদস্য রাজীব আহমদও দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেনের এক যাত্রীর গুরুত্বপূর্ণ কাগজ পত্রের ফাইল, ওই যাত্রীর হাতে তুলে দেন।

বরমচাল রেলওয়ে স্টেশন মাষ্টার শফিকুল ইসলাম জানান, রেলওয়ে বিভাগের কর্মকর্তারা ভোর ৫টা থেকে লাইন ব্লক করে সেতুর নিচে পড়ে থাকা ট্রেনটির বগি তোলা হয়। এরপর দুপুর দেড়টায় বিভিন্ন স্টেশনে আটকে থাকা ট্রেনগুলো একে একে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে সিলেটের সঙ্গে সারা দেশের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করে দেওয়া হয়।

সোনালীনিউজ/এমটিআই