সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

কেন্দ্রকে টিকটক বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট !

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৪ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার ০২:১৭ পিএম

কেন্দ্রকে টিকটক বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট !

ঢাকা : টিকটক মোবাইল অ্যাপ ব্যবহারকারীদের জন্য দুঃসংবাদ দিয়েছে মাদ্রাজ হাইকোর্ট। বুধবার (৩ এপ্রিল) কেন্দ্রকে নির্দেশ দিয়েছে, চীনা মোবাইল অ্যাপটি নিষিদ্ধ করতে হবে।

আদালতের পর্যবেক্ষণ, টিকটক অ্যাপের কনটেন্ট অনুপযুক্ত৷ এখানে পর্ণগ্রাফির মতো কনটেন্টও রয়েছে যা কমবয়সীরা সহজেই তার নাগাল পেয়ে যাচ্ছে৷ তাছাড়া এই মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে স্কুলের শিক্ষার্থীরা যেভাবে অনলাইনে অপরিচিতদের সাথে নিজেদের পরিচয় করছে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে হাইকোর্টের বেঞ্চ৷

মাদ্রাজ হাইকোর্টের বিচারপতি এন কিরুভাকরণ ও বিচারপচি এসএস সুন্দরের নির্দেশে তিনটি জিনিস উঠে আসে৷ প্রথমত, টিকটক মোবাইল অ্যাপকে নিষিদ্ধ করতে হবে৷ দ্বিতীয়ত, টিকটক মোবাইল অ্যাপে তৈরি কোনও ভিডিও মিডিয়া সম্প্রচারিত করতে পারবে না৷ তৃতীয়ত, কমবয়সীদের বিশেষত ১৮র কম বয়সীরা যাতে সাইবার অপরাধের শিকার না হয় তা আটকাতে আমেরিকার মতো চিলড্রেনস অনলাইন প্রাইভেসি প্রোটেকশন অ্যাক্ট চালু করা নিয়ে কী ভাবছে৷

বিচারপতিরা তাদের নির্দেশে ইন্দোনেশিয়া ও বাংলাদেশের কথা উল্লেখ করেন৷ এই দুই দেশে নিষিদ্ধ টিকটক৷ এই মোবাইল গেমের আসক্তি জেরে কমবয়ীরা ভয়াবহ পরিণতির দিকে এগিয়ে চলেছে৷ মাদুরাইয়ের এক আইনজীবী ও সমাজকর্মী মুথু কুমার টিকটককে নিষিদ্ধের দাবিতে মাদ্রাজ হাইকোর্টে পিটিশন দাখিল করেন৷

পিটিশনে তিনি উল্লেখ করেন, এই মোবাইল অ্যাপে অতিরিক্ত আসক্তির জেরে কমবয়সীদের মধ্যে সংস্কৃতির অবনতি ঘটছে৷ পর্ণগ্রাফি সহজলভ্য হয়ে যাচ্ছে৷ শিশুনিগ্রহ বাড়ছে৷ ভারতে প্রতিমাসে ৫৪ মিলিয়ন টিকটক ব্যবহার করে৷ ২০১৮ সালে বেজিং ননগেম মোবাইল অ্যাপটি ছিল ছিল চতুর্থ ডাউনলোডেড অ্যাপ৷ এই মামলার পরবর্তী শুনানি ১৬ এপ্রিল৷

এদিকে নতুন প্রজন্মকে ইন্টারনেটের আপত্তিকর আসক্তি থেকে বের করে আনতে ইতিমধ্যে অশ্লীল কনটেন্ট, জুয়া বা বিপথগামী সাইট বন্ধ করে দিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। এর ধারাবাহিকতায় এবার দেশীয় সংস্কৃতি রক্ষায় টিকটক বন্ধের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

বিভিন্ন সিনেমার জনপ্রিয় গানের একাংশ,ঠোঁট মিলিয়ে ভিডিওতে কোনো খারাপ উক্তি তৈরির এই অ্যাপ নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি দেশে সমালোচনা ঝড় উঠেছে।

অ্যাপের কারণে আমাদের নতুন প্রজন্মের বেড়ে উঠা হুমকির মুখে পড়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপের কারণে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে অশ্লীল কন্টেন্ট ও ব্যঙ্গাত্মক ভিডিও। এর ফলে মানুষের মধ্যে এক ধরনের অসুস্থ মানসিকতা তৈরি হয়। তারা স্বাভাবিক কথা কেউও ব্যঙ্গ করে বলে। এছাড়া এসব একসময় বদভ্যাসে পরিণত হয়।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম অ্যাপ টিকটকের ওপর নিষেধাজ্ঞার দাবি উঠেছে ভারতে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ ধরনের সাইড দেশীয় সংস্কৃতির জন্য হুমকিস্বরূপ। সাইট বা প্ল্যাটফর্মের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বিপথগামী ওয়েবসাইট ও অ্যাপ বন্ধে সরকার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

টিকটক বন্ধের বিষয়ে জানতে চাইলে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, শুধু টিকটক নয় দেশীয় সংস্কৃতির জন্য হুমকি রয়েছে এমন সব ধরনের সাইট আমরা বন্ধ করে দিতে চাই।

তিনি বলেন, আমি ইন্টারনেটকে নিরাপদ করতে চাই। আমার দেশ ইউরোপ না আমেরিকা না আমার দেশে বাংলাদেশ। তাই এ দেশের মানুষ, সমাজ, সাহিত্য, সংস্কৃতি সঙ্গে যায় না এমন কোনো কিছুকেই আমি রাখতে চাই না।

এসব সাইট বন্ধ করলে আবার খোলা হয়, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খোলা হলে বন্ধ করে দেব। যতবার খোলা হবে ততবার বন্ধ করে দেব। মানুষের জীবন ও মান ও দেশের জন্য ক্ষতিকর এসব সাইট বন্ধে কতটুকু সফল হব জানি না। তবে আমি আমার সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে এই দায়িত্ব পালন করে যাব। আমি আমার দেশ, মাটি ও মাকে বাঁচাতে চাই।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue