রবিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৮, ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

কৌশলে ঐক্যফ্রন্টে জামায়াত!

বিশেষ প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২১ অক্টোবর ২০১৮, রবিবার ০৮:৩৭ পিএম

কৌশলে ঐক্যফ্রন্টে জামায়াত!

ঢাকা : কৌশলে জামায়াতকে নিয়েই জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়েছে বিএনপি। বিএনপি ও ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতাদের দাবি, স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অংশ নয়। আর ২০ দলীয় জোটের নেতারা বলছেন, ঐক্য প্রক্রিয়ায় এই জোটের প্রতিনিধিত্ব করছে বিএনপি। তাই ঐক্যফ্রন্টে জামায়াত নেই একথা বলার কোন সুযোগ নেই।

বৃহত্তর ঐক্য প্রক্রিয়ার উদ্যোক্তাদের শর্তই ছিলো স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তিকে বাদ দিয়ে আন্দোলনের অভিন্ন মঞ্চ তৈরি করা। এ বিষয়ে ড. কামাল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, বিএনপিতো বলছে তারা জামায়াত থেকে সরে আসছে। আর জামায়াত এখন কোন রাজনৈতিক দল হিসেবেও নেই।

এই শর্তের কারণেই বৃহত্তর ঐক্য ও বিএনপির মাঝে প্রশ্নবোধক চিহ্ন হয়ে দাঁড়ায় জোট সঙ্গী জামায়াতে ইসলামী। তারপরও বিএনপিকে নিয়েই গঠন করা হয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ফলে তাতে পরোক্ষভাবে রয়েছে জামায়াতে ইসলামী।

ঐক্যফ্রন্টে পরোক্ষভাবেই জামায়াত রয়েছে উল্লেখ করে বিকল্পধারা বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি. চৌধুরী বলেন, পুরো ঐক্য প্রক্রিয়াটি করা হয়েছে স্বাধীনতা বিরোধীদের রাজনীতিতে পুনরবাসিত করা। তবে, ঐক্যফ্রন্ট নেতারা বলছেন, তাদের এই ঐক্য বিএনপির সঙ্গে, ২০ দলের সঙ্গে নয়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘বর্তমান প্রেক্ষাপটে এসব কথা টেনে এনে জনগনের মাঝে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করার কোন মানে হয়না। বিএনপি একক ভাবে জোটে গেছে। বিশ দলীয় জোট আলাদা, সেটা এখনও আছে ভবিষ্যৎতেও থাকবে।’

জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব জানান, ‘আমাদের ঐক্য বিএনপির সাথে বিশ দলীয় জোটের সাথে নয়। অতএব বিএনপির সাথে কে থাকবে না থাকবে সেটা তাদের ব্যাপার।’

নাগরিক ঐক্যর আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না জানান, ‘আমরা স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে ঐক্য করছি না। আমরা বিশ দলীয় জোটের সাথেও ঐক্য করছি না।  আমাদের ঐক্য বিএনপির সাথে সুতরাং জামায়াতের সাথে ঐক্যের কোন প্রশ্নই আসে না।’

২০ দলের নেতাদের মতে, বড় দল হিসেবে বিএনপিই জোটের প্রতিনিধিত্ব করে। তাই ঐক্য প্রক্রিয়ায় জামায়াতকে বাদ দেয়ার কোন সুযোগ নেই।
এ বিষয়ে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির সভাপতি কর্নেল (অব) অলি আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘জামায়াতের পক্ষ থেকে সৌজন্যমূলকভাবে বলতেই পারে, জামায়াতের কারণে যদি কোন সমস্যা হয় তবে আমাদের বাদ দেন। কিন্তু এটা বাদ দেয়া হয় নি, এটাই বাস্তব। কারণ জামায়াত বিশ দলের সবচেয়ে বড় অংশ। বিএনপির সাথে যখন ঐক্য হয়েছে তখন জামায়াত এর সাথে আছে, এতে সন্দেহ পোষণ করার কোন অবকাশ নাই।’

ঐক্য প্রক্রিয়ায় জামায়াতকে বাদ দেয়া প্রসঙ্গে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির সভাপতি মেজর জেনারেল (অব) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, ‘বিশ দলীয় সকলের প্রতি এবং জামায়াতের প্রতি নিবেদন এই, বিএনপি যা ভাল মনে করে যেন তাই করে। কিন্তু জামায়াতের কারণে ঐক্য হয়নি, একথা যেন না বলেন। এটা যদি আমাদের আলোচনার বিষয় না হয়, তবে এটা আমাদের আলোচনার টেবিলে আসবে কেন।’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে স্বাগত জানালেও ২০ দলের ঐক্যকে সুসংহত করার দিকে বেশি মনোযোগী হতে বিএনপির প্রতি আহবান জানিয়েছেন জোট নেতারা।

সাঈদীপুত্রের সঙ্গে মাহি বি. চৌধুরীর ছবি ভাইরাল : বিকল্পধারার যুগ্ম মহাসচিব মাহি বি. চৌধুরীর সাথে যুদ্ধাপরাধীর দায়ে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলওয়ার হুসাইন সাঈদীর পুত্রের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। যা নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। তবে ছবি নিয়ে মাহি বি. চৌধুরীর দাবি, সাঈদীপুত্রকে চেনেন না তিনি। আর ছবিটি সাঈদীপুত্র শখের বশে তুলেছেন।

ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেছেন মাহি বি. চৌধুরী। তিনি জানান, ছবি অনেকদিন আগে রাজধানীর বনানীর একটি ক্যাফেতে তোলা। আমি উনাকে চিনি না। প্রথমে ক্যাফের বাইরে এক চটপটির দোকানদার আমার সঙ্গে ছবি তুলতে চান। পরে হঠাৎই ওই ভদ্রলোক এসে আমার সঙ্গে ছবি তোলেন। আমি তখন আমার পরিবার নিয়ে সেখানে গিয়েছিলাম।

মাহি বি. চৌধুরী আরও বলেন, আমার সঙ্গে প্রতিদিন ঢাকায় অনেকেই ছবি তোলেন। আমি সকলকে চিনি না। চেনার কথাও না। আপনারা উনাকে (সাঈদী পুত্র) জিজ্ঞাসা করতে পারেন। এই ছবি আমি আরও কয়েকদিন আগে ফেসবুকে দেখেছি।

জানা যায়, দেলওয়ার হুসাইন সাঈদীর মেজো পুত্র তিনি। শামীম সাঈদী।

সোনালীনিউজ/এমটিআই