রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬

খালেদা জিয়ার মুক্তির উপায় জানালেন আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৫ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার ০৯:০০ পিএম

খালেদা জিয়ার মুক্তির উপায় জানালেন আইনমন্ত্রী

ঢাকা: ফৌজদারী আইনে খালেদা জিয়ার সাজা কমানোর সুযোগ নেই তবে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করলে বিবেচনা করার সুযোগ আছে বলে জানিয়েছেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ দশজনকে মানবাধিকার পদক প্রদান অনুষ্ঠান শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

আইনমন্ত্রী জানান, খালেদা জিয়া সরকারের কাছে আবেদন না করা পর্যন্ত, মন্ত্রী হিসেবে এ নিয়ে কোন মন্তব্য নয়।  সরকার মানবাধিকার রক্ষায় বদ্ধপরিকর এবং সে অনুযায়ী কাজ করে যাচ্ছে। বাকপ্রকাশে, মতপ্রকাশে গণমাধ্যমের স্বাধীনতাই তার প্রমাণ।

মন্ত্রী  বলেন, সরকারের অর্জন অনেক তবে চ্যালেঞ্জও রয়েছে। কোন অবস্থাতেই বিচারহীনতার সংস্কৃতি রাখতে চায় না সরকার। একই অনুষ্ঠানে মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামাল বলেন, মানবাধিকর্মীরা রাষ্ট্রের সহযোগী হতে চায়। একইসঙ্গে রাষ্ট্র যেন নারীবৈরী ও মানুষের স্বার্থবিরোধী অপশক্তির সাথে আপোষ না করে সে আহ্বান জানান তিনি।

এদিকে, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত বা সাজা কমিয়ে মুক্তি দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। তারপরও আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার চাইলে বিষয়টি বিবেচনা করতে পারে।

মঙ্গলবার রাজধানীতে নিজ কার্যালয়ে সাজা স্থগিত করে বেগম জিয়ার মুক্তি চেয়ে তার আইনজীবীর দাবির বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে এ কথা বলেন তিনি।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, সাধারণত সাজা সাসপেন্ড করা হয় অনেকদিন সাজা খাটার পরে। সরকার বিশেষ বিবেচনায় এটা করে, করতে পারে। সে রকম কেস যদি তারা মেইক আউট করতে পারে, সেটা সরকারের ব্যাপার।

তিনি বলেন, জেলখানায় যারা থাকেন এবং বহুদিন কারাভোগ করেন ৪০১ ধারা অনুযায়ী তাদের নানাবিধ বিবেচনায় রিমিশন দেয়া হয় এবং অনেক সময় স্থগিতও করা হয়। কিন্তু তারা যদি প্রমাণ করতে পারেন কেস মেক আউট করতে পারেন সে ব্যাপারে সরকার দেখবে।

উল্লেখ্য, গত ৯ জানুয়ারি এক সংবাদ সম্মেলনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের আহ্বায়ক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছিলেন, জিয়া চ্যারিটেবলট্রাস্টের মামলায় সর্বোচ্চ সাজা পাঁচ বছর দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে তিনি দুই বছর কারাভোগ করেছেন। তাই তিনি একজন বয়ষ্ক অসুস্থ নারী হিসেবে দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী জামিন পাওয়ার অধিকার রাখেন।

তিনি আরো বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১(১) ধারা মোতাবেক কোনো সাজার কার্যকারিতা শর্তহীনভাবে স্থগিত করার একমাত্র ক্ষমতা সরকারের হাতে। আমরা আশা করি, সরকার প্রতিহিংসার পথ পরিহার করে আইনগতভাবেই চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে পারেন। এজন্য প্রয়োজন সরকারের সদিচ্ছা।’

আর এ পরিপ্রেক্ষিতে ৪০১(১) ধারায় সাজা খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করে তাকে মুক্তি দিয়ে দেশে/বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ করে দেওয়ার দাবি জানান খন্দকার মাহবুব হোসেন।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue