রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬

‘গোপনাঙ্গ লক্ষ্য করে অ্যাসিড মেরেছিল গায়িকা মিলার সহকারী’

বিনোদন প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১২ জুন ২০১৯, বুধবার ০২:৩৭ পিএম

‘গোপনাঙ্গ লক্ষ্য করে অ্যাসিড মেরেছিল গায়িকা মিলার সহকারী’

ঢাকা : ‘ভাইয়া বাইক নিয়ে যাচ্ছিলো। এই সময় সামনে এসে পড়ে কিম। বলতে থাকে ‘আমাকে বাঁচান। আমাকে মিলা মেরে ফেলবে।’ গাড়ি থামাতেই অ্যাসিড নিক্ষেপ করে সে। শরীরে অ্যাসিড পড়তেই চিৎকার করতে থাকে ভাইয়া। রাস্তার পাশে এক বাড়িতে গিয়ে তাদের সহযোগিতা নিয়ে পানি ঢালতে থাকে গায়ে।

তার শরীর যতটা পুড়েছে, সঙ্গে সঙ্গে পানি ঢালা না হলে আরও অনেক অংশ পুড়ে যেত।’ এভাবেই অ্যাসিড নিক্ষেপের বর্ণনা দিচ্ছেলেন সানজারির ভাই অ্যাডভোকেট আলামিন খান।

সানজারির গোপনাঙ্গ লক্ষ্য করেই অ্যাসিড ছোঁড়া হয়েছিলো বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মিলা ও তার সহকারী ‘কিম জন পিটার হালদার ওরফে পিটার কিমের গ্রেফতারের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বুধবার (১২ জুন) মিলার সাবেক স্বামী বৈমানিক এস এম পারভেজ সানজারি পক্ষে তার ভাই ও এইড ফর মেন নামের একটি সংগঠন এ মানববন্ধনের আয়োজন করে। এই মানবন্ধনেই সানজারিকে কীভাবে অ্যাসিড মারা হয়েছিলো সেই বর্ণনা তুলে ধরেছেন তিনি।

অ্যাডভোকেট আলামিন খান বলেন, ‘কিমের আর্তনাদ শুনে ভাইয়া গাড়ি থামায়। এই সময় সেই রাস্তার অদূরেই দাঁড়িয়ে ছিলেন মিলা। তাকে দেখেই দূর্ঘটনা আন্দাজ করতে পারেন ভাইয়া। ততক্ষণে অ্যাসিড মারা হয়ে গেছে। তার গোপনাঙ্গ লক্ষ্য করে অ্যাসিড মারা হয়েছে। যাতে করে সারা জীবনের জন্য সে বিকলাঙ্গ হয়ে যায়।

এটা পরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে। হাত, পেট ও শরীরের আরও বেশ কিছু অংশ অ্যাসিডে ঝলসে গেছে তার। মাথায় হেলমেট পরা অবস্থায় ছিলেন বলে তার মুখে অ্যাসিড মারা সম্ভব হয়নি। দুঃখের বিষয় হলো এখনো অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হলো না।’

গত ২ জুন সন্ধ্যার দিকে মোটরসাইকেলযোগে যাওয়ার সময় পথে এই হামলার শিকার হন সানজারি। গত ২জুন থেকে ৯ জুন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ৬০২ নাম্বার কেবিনে চিকিৎসাধীন ছিলো।

গত ৪ জুন অ্যাসিড দমন আইনে গায়িকা মিলার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন পারভেজ সানজারির বাবা এস এম নাসির উদ্দিন। উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলাটি (নম্বর-৫) দায়ের করা হয়। সেই মামলার এজাহারে মিলা এবং তার সহকারী পিটার কিমকে অভিযুক্ত করা হয়। তাদের গ্রেফতারের দাবিতে বুধবার সকাল ১০টায় মানববন্ধন করেন সানজারির ভাই ও এইড ফর মেন নামের একটি সংগঠন।

মানববন্ধনের সভাপতিত্ব করেন এইড ফর মেন সংগঠনের আহ্বায়ক ড. আব্দুর রাজ্জন। এছাড়া মানববন্ধনে সানজারির ভাই অ্যাডভোকেট আলামিন খান, এইড ফর মেন-এর আইন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট কাউসার হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগেও গত ২১ এপ্রিল আদালতে মিলার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন পারভেজ সানজারি।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue