বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

ছেলে ঢাকা গেলেই রাতে পুত্রবধূর বিছানায় যেত শ্বশুর

শরীয়তপুর প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৮ জুলাই ২০১৯, সোমবার ০৮:২২ পিএম

ছেলে ঢাকা গেলেই রাতে পুত্রবধূর বিছানায় যেত শ্বশুর

শরীয়তপুর: বিয়ের পর থেকে কাজের প্রয়োজনে স্বামী অধিকাংশ সময় ঢাকায় থাকতেন। স্বামীর অবর্তমানে ওই নারী তার শ্বশুর, শাশুড়ি ও দেবরের সঙ্গে এক ঘরেই ঘুমাতেন। গত ২৮ মে সবাই ঘুমিয়ে গেলে গিয়াস উদ্দীন ঢালী তার পুত্রবধূকে ধর্ষণ করেন এবং বিষয়টি কাউকে বললে মেরে ফেলার হুমকি দেন। এরপর থেকে সুযোগ পেলেই পুত্রবধূকে ধর্ষণ করতো গিয়াস উদ্দীন ঢালী। জীবননাশের হুমকি, সামাজিক লজ্জা ও সংসার ভাঙার ভয়ে এতদিন বিষয়টি কাউকে না জানালেও রবিবার (৭ জুলাই) শ্বশুর গিয়াস উদ্দীন ঢালীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে সখিপুর থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী নারী।

ঘটনাটি ঘটেছে শরীয়তপুরের সখিপুরে। সোমবার (৮ জুলাই) পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ শ্বশুর গিয়াস উদ্দীন ঢালীকে (৫৩) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

সখিপুর থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুরের গিয়াস উদ্দীন ঢালীর বড় ছেলের সঙ্গে দুই বছর আগে ওই নারীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে কাজের প্রয়োজনে স্বামী অধিকাংশ সময় ঢাকায় থাকতেন। স্বামীর অবর্তমানে ওই নারী তার শ্বশুর, শাশুড়ি ও দেবরের সঙ্গে এক ঘরেই ঘুমাতেন। গত ২৮ মে সবাই ঘুমিয়ে গেলে গিয়াস উদ্দীন ঢালী তার পুত্রবধূকে ধর্ষণ করেন এবং বিষয়টি কাউকে বললে মেরে ফেলার হুমকি দেন। এরপর থেকে সুযোগ পেলেই পুত্রবধূকে ধর্ষণ করতো গিয়াস উদ্দীন ঢালী। জীবননাশের হুমকি, সামাজিক লজ্জা ও সংসার ভাঙার ভয়ে এতদিন বিষয়টি কাউকে না জানালেও রবিবার (৭ জুলাই) শ্বশুর গিয়াস উদ্দীন ঢালীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে সখিপুর থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী নারী।

এরপর সোমবার গিয়াস উদ্দীন ঢালীকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় সখিপুর থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে সখিপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) এনামুল হক বলেন, ‘বিষয়টি খুবই ন্যক্কারজনক। শ্বশুরকে গ্রেফতার এবং ওই নারীকে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।’

সোনালীনিউজ/এইচএন

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue