শুক্রবার, ০৩ জুলাই, ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭

জমি লিখে না দেয়ায় বৃদ্ধা মাকে বাড়িছাড়া করলো ছেলে

মাগুরা প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৫ জুন ২০২০, শুক্রবার ১০:১৭ পিএম

জমি লিখে না দেয়ায় বৃদ্ধা মাকে বাড়িছাড়া করলো ছেলে

ছবি: সংগৃহীত

মহম্মদপুর (মাগুরা): ছেলেকে বাড়ির জমি লিখে না দেয়ায় এইচএসসি পরীক্ষার্থী মেয়ে মাছুরা খাতুনকে নিয়ে বাড়িছাড়া মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার দীঘা গ্রামের সালমা বেগম নামে এক বৃদ্ধা মা।

ছেলের অত্যাচার-নির্যাতন সইতে না পেরে নিজের বাড়িতে আশ্রয় না পেয়ে থাকছেন স্বজনদের বাড়ি। মায়ের বড় ছেলের এমন আচরণে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত আবেদনের মাধ্যমে নিরাপত্তা ও আশ্রয় চেয়েছেন ওই বৃদ্ধা মা।

এলাকাবাসী জানান, ১৭ বছর আগে গাছ পড়ে দুর্ঘটনায় মারা যান সালমা বেগমের স্বামী কায়েম মোল্যা। তারপর থেকে সালমা বেগম দুর্বিষহ দিন কাটিয়ে দুই ছেলে এবং এক মেয়েকে বড় করেছেন।

বড় ছেলে হাবিবুর রহমানকে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে বিয়ে দেন। তারপর থেকে জমি লিখে দেয়ার জন্য মায়ের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে হাবিবুর রহমান।

মা সালমা বেগম অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে বলেন, আমি ছেলে-মেয়েরে অনেক কষ্টে পড়ালেখা করাইছি। মানুষ করছি। আমি বিভিন্ন মানুষের বাড়িতে বুয়ার এবং রাস্তায় মাটি কাটার কাজ করেছি। এ ছাড়া মাঠেও কাজ করছি। তারপর ইউএনও অফিস থেকে চাল দিয়ে আইছিল, টাকা দিয়ে আইছিল।

তার উপর ভিত্তি করে আমি ছেলে-মেয়ে মানুষ করেছি দিন-রাত না খায়ে। হাঁস, মুরগী পুষে তাদের মানুষ করেছি। বড়লোকদের বাড়ি এখনও কাম করি। তারপরও আমি ছেলের ভাত খাইনে। এরপরও আমারে এত নির্যাতন করতিছে। ছেলে ৭ মাস বিয়ে দিছি। আমারে এখন মারে ফেলানোর হুমকি দিচ্ছে।

মেয়ে এইচএসসি পরীক্ষার্থী তার বই-খাতা আটকায়ে রাখছে। এই যুবতী মায়েরে নিয়ে আমি এ ও বাড়ি থাকতিছি। আমার এবং আমার মেয়েরে বাড়ি থাকার ব্যবস্থা করে দেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিজানুর রহমান বলেন, তার নিরাপত্তা এবং আশ্রয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue