রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬

টুল দিয়ে পিটিয়ে রোগির মাথা ফাটালেন ডাক্তার

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি  | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৯ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার ০৩:৪০ পিএম

টুল দিয়ে পিটিয়ে রোগির মাথা ফাটালেন ডাক্তার

ময়মনসিংহ : এক কলেজ শিক্ষার্থী মাথা পাটিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের এক চিকিৎসক।  ওই চিকিৎসকের ডাঃ এ.কে.এম আনিসুর রহমান (বাবলু)।  তিনি মমেক হাসপাতালের ডেন্টাল বিভাগের আবাসিক সার্জন বলে জানা গেছে।

সোমবার (৮ জুলাই) দুপুরে মমেক হাসপাতালের ডেন্টাল বিভাগে এ ঘটনা ঘটে। আহত তরুন ঈশ্বরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে। বসার টুলের আঘাতে মাথা ফেটে আহত হয়।

এদিকে আহত তরুণ মিয়া অভিযোগ করে বলেন, সোমবার সকাল ১০টা থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ডাক্তার দেখাবো বলে আমি অপেক্ষা করছি। তখন ডাক্তার ৩০ মিনিট রোগী দেখার পর রুম থেকে বেরিয়ে অন্য কোথাও ১ ঘণ্টার জন্য চলে যায়। এরপর বেশী রোগী হওয়ায় ১ ঘণ্টা না থাকার কারণে বিঘ্ন ঘটে। ডাক্তার আসার পর আমি ডাক্তার দেখানো জন্য রুমে যাই। তখন ডাক্তার বলেন, রুম থেকে বেরিয়ে যান। এখন রোগী দেখব না।

এসময় তরুণ বলেন, স্যার আমার আগামীকাল পরীক্ষা আছে। আমাকে আজকে একটু দেখে দেন। পরে আসতে আমার অসুবিধা হবে। এভাবে কথা বলায় ওই চিকিৎসক তার রুমে থাকা বসার টুল দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এতে তরুন মিয়ার মাথা ফেটে রক্ত ঝড়তে থাকে। পরে তরুণের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তার হাত থেকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

অন্যদিকে মমেক হাসপাতালের ডেন্টাল বিভাগের আবাসিক সার্জন ডাঃ এ.কে.এম আনিসুর রহমান বাবলুর সঙ্গে আজ মঙ্গলাবার (৯ জুলাই) এবিষয়ে মুঠো ফোনে কথা বলতে চাইলে, তিনি বলেন, আমি যা বলেছি গতকালই বলে দিয়েছি। এখন আর কথা বলতে পারবো। যেহেতো বিষয়টি অফিসিয়াল হয়ে গেছে আপনি ডেপুটি ডিরেক্টরের স্যারের সাথে কথা বলুন।

মমেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ লক্ষী নারায়ণ এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। আহত কলেজ শিক্ষার্থী আমার কাছে মৌখিক ভাবে বলেছে। তাকে বলেছি লিখিত অভিযোগ দিতে। পরে সে আর অফিসে আসেনি। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থার কথা জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

সোনালীনউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue