রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত তিন শতাধিক ডাক্তার-নার্স!

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার ০২:১৯ পিএম

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত তিন শতাধিক ডাক্তার-নার্স!

ঢাকা : রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও অন্যান্য স্টাফসহ সর্বমোট ৩৩০ জন ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১০৪ জন চিকিৎসক, ১৩৬ জন নার্স ও ৯০ জন অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে সরকারি হাসপাতালের ১৮৮ জন এবং বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকের চিকিৎসক নার্স ও অন্যান্য স্টাফ আক্রান্ত হন ১৪২ জন। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১ হাজার ১৭৯ জন রোগী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

গতকাল শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিদিনই এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গুজ্বরে সারা দেশে বহু মানুষ নতুন করে আক্রান্ত হচ্ছে। এডিস মশার বংশবিস্তারের অনুকূল আবহাওয়া এবং ‘পিক টাইমে’ ডেঙ্গু পরিস্থিতি ঝুঁকিপূর্ণ সময় পার করছে। আগস্ট মাসে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত প্রতি বছরই বৃদ্ধি পায় বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাক্তার আবুল কালাম আজাদ বলেন, সম্প্রতি ডেঙ্গুজ্বরের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় হাজারো রোগী বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে জেনেও কর্তব্যরত চিকিৎসক নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী ডেঙ্গু রোগীদের পাশে থেকে নিবিড় পরিচর্যা দিয়েছেন। চিকিৎসা দিতে গিয়ে অনেকেই ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে পয়েছেন। তবে আক্রান্তদের অনেকেই ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত ১৮৮ জনের মধ্যে ঢাকা মেডিকেলের ২৫ জন চিকিৎসক, ২২ জন নার্স ও ১৫ জন স্টাফ।

মিটফোর্ড হাসপাতালের পাঁচজন নার্স, শিশু হাসপাতালের দুজন চিকিৎসক ও চারজন নার্স, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের ১১ জন চিকিৎসক, ১৩ জন নার্স ও ৬ জন স্টাফ আক্রান্ত হন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চারজন চিকিৎসক আক্রান্ত হন।
রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালের দুজন চিকিৎসক ও তিনজন নার্স আক্রান্ত হন। মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৪ জন চিকিৎসক ও ২২ জন নার্স আক্রান্ত হন। বিজিবি সদর হাসপাতালে চারজন চিকিৎসক ও ১৪ জন নার্স আক্রান্ত হন। সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল ঢাকায় চারজন চিকিৎসক, তিনজন নার্স ও সাতজন স্টাফ আক্রান্ত হন। এ ছাড়া পঙ্গু হাসপাতালের দুজন চিকিৎসক ও পাঁচজন স্টাফ আক্রান্ত হন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট সেন্টারের কন্ট্রোল রুম আরো জানিয়েছে, চলতি বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৩৩০ জন চিকিৎসক নার্স ও অন্যান্য সহযোগী স্টাফের মধ্যে ইতোমধ্যে ১০২ জন চিকিৎসক, ১২৭ জন নার্স ও ৮৬ জন স্টাফ সুস্থ হয়ে গেছেন। গত ২৩ আগস্ট ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে দুজন চিকিৎসক, ৯ জন নার্স ও চারজন স্টাফসহ মোট ১৫ জন স্বাস্থ্যসেবা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

অন্যদিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় শিশু ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা তুলনামূলকভাবে বেড়েছে। গতকাল শনিবার হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন এ কথা জানান।

ঢামেক পরিচালক বলেন, গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত শিশু ছিল মোট ৯০ জন। সেখানে গত ২৪ ঘন্টায় শিশুর সংখ্যা ২২ জন বেড়ে তা হয়েছে ১০২। অর্থাৎ ডেঙ্গু আক্রান্ত শিশু ভর্তির হার কিছুটা বেড়েছে।

তিনি আরো বলেন, শিশুসহ ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে মোট ৮৫ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছেন। সব মিলিয়ে বর্তমানে ভর্তি আছেন ৫৬৩ জন। এদের মধ্যে ৬৬ জন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে আছেন। এছাড়া দুজন আছেন আইসিইউতে। তাদের মধ্যে কেউ শিশু নেই বলে জানান তিনি।

সোনালীনিউজ/এমটিআই