মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

প্রস্তুতি ম্যাচে

তামিম-সৌম্যর ঝড়ো সেঞ্চুরিতে উইন্ডিজ বধ

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার ০৮:৩৮ পিএম

তামিম-সৌম্যর ঝড়ো সেঞ্চুরিতে উইন্ডিজ বধ

ফাইল ছবি

ঢাকা: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে নিজেদের পরখ করে নেয়ার সুযোগটা দারুনভাবে কাজে লাগাল বাংলাদেশ। তামিম ইকবাল আর সৌম্য সরকারের ঝড়ো সেঞ্চুরিতে প্রস্তুতি ম্যাচে ক্যারিবীয়দের ৫১ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বার্ড (বিসিবি) একাদশ। অবশ্য জয়টি এসেছে ডাকওয়ার্থ লুইস (ডিএল) পদ্ধতিতে।

উইন্ডিজের ছুঁরে দেয়া ৩৩২ রানের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে নেমে ৪১ ওভারে ৬ উইকেটে ৩১৪ রান তুলে নেয় বিসিবি একাদশ। এরপর আলোক স্বল্পতার কারণে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। জয়ের জন্য তখনও বিসিবি একাদশের প্রয়োজন ছিল ১৮ রান। এমন অবস্থায়  ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতি অনুসরণ করেন ম্যাচ অফিসিয়ালরা। তাতে ৪১ ওভার পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে ৫১ রানে এগিয়ে থাকায় বিসিবি একাদশকেই জয়ী ঘোষণা করা হয়।

লক্ষ্য তারা করতে নেমে বিসিবি একাদশকে দুর্দান্ত সূচনা এনে দিয়েছেন সদ্য চোটমুক্ত তামিম ইকবাল এবং ইমরুল কায়েস। ২৭ রান করে দলীয় ৮১ রানে ইমরুল সাজঘরে ফিরলেও সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে তামিম। রোস্টর চেসের বলে শাই হোপের স্ট্যাম্পিংয়ের শিকার হওয়ার আগে ৭৩ বলে ১৩ চার ও ৪ ছক্কায় ১০৭ রান করেন বাংলাদেশের বাঁহাতি ওপেনার।   

তামিমের বিদায়ের পর হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন সৌম্য সরকার। কিন্তু তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হয়েছেন মোহাম্মাদ মিঠুন। মাত্র ৫ রান করে বিদায় নিয়েছেন তিনি। এরপর আরিফুল হককে নিয়ে কাংঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে এগোচ্ছিলেন সোম্য। কিন্তু ২১ রান করে দেবেন্দ্র বিশুর শিকার হন আরিফুল। তৌহিদ আর শামিম পাটওয়ারি দ্রুত সাজঘরে ফিরলেও মাত্র ৭৫ বলে সেঞ্চুরি করেন সৌম্য সরকার।  

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার সাথে সপ্তম উইকেটে মাত্র ৩৫ বলে গড়েন ৪৯ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে দলকে জয়ের নিকটে পৌঁছে দেন সৌম্য। ৮৩ বলে ১০৩ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। আর ২২ রানে অপরাজিত মাশরাফি।  

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল। বিসিবি একাদশের অধিনায়ক হয়েও মাশরাফি ক্যারিবীয় অধিনায়কের সঙ্গে টস করলেন রুবেল হোসেনকে দিয়ে।

উড়ন্ত সূচনা এনে দেন কাইরন পাওয়েল ও শাই হোপ। দুই ক্যারিবীয় ওপেনার কাইরন পাওয়েল ও শাই হোপ ১০১ রানের জুটি উপহার দেয় দলকে। পাওয়েল ব্যক্তিগত ৪৩ রানে ফিরে গেলেও ড্যারেন ব্রাভোকে নিয়ে এগিয়ে যান হোপ। ৫৮ রানের জুটি গড়েন তারা। তবে ১৫৯ থেকে ১৭৬ রানের মধ্যে চার উইকেট হারিয়ে এলোমেলো হয়ে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস।

সেখানে ঘুরে দাঁড়িয়ে দলকে বিশাল সংগ্রহ পাইয়ে দিয়েছেন ৫১ বলে ৬৫ রানে অপরাজিত থাকা রোস্টন চেজ। তাঁর ও ফাবিয়েন অ্যালেনের (৪৮) ঝড়ে শেষ ১০ ওভারে ৯৯ রান যোগ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শেষদিকে স্বাগতিক বোলারদের ওপর স্টিম রোলার চালান রোস্টন চেজ ও ফাবিয়ান অ্যালেন। ব্যাটকে তলোয়ার বানিয়ে মাশরাফি-রুবেলদের কচুকাটা করেন তারা। ৩২ বলে ৮ চার ও ১ ছক্কায় ৪৮ করে ফেরেন অ্যালেন।

অন্তিমলগ্নে দ্রুত কিম পল ও সুনিল আমব্রিস ফিরলেও চেজ টর্নেডো চলেছেই। ৫১ বলে ৬ চার ও ১ ছক্কায় হার না মানা ৬৫ রান করেন এ মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান। শেষ পর্যন্ত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩৩১ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

প্রথম স্পেলে ৪ ওভার বল করে বিশ্রামে যান মাশরাফি। পরে আবার মাঠে ফিরে মারলন স্যামুয়েলসের উইকেট শিকার করেন তিনি। ২ উইকেট নিয়েছেন রুবেল। নাজমুল ও মেহেদী হাসান রানা ২টি করে উইকেট নেন।

আগামী ৯ ডিসেম্বর মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে সফরকারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

সোনালীনউজ/ঢাকা/জেডআই