শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

দেশি গরুর দুধে সোনা থাকে বিজেপি নেতার তথ্য

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৬ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার ০২:২২ পিএম

দেশি গরুর দুধে সোনা থাকে বিজেপি নেতার তথ্য

ঢাকা : গরু নিয়ে বিজেপি নেতাদের নানা আজব তত্ত্ব মাঝে মধ্যেই শোনা যায়। এর সঙ্গে জুটেছে কিছু বিজেপি অনুগামী বিজ্ঞানীও।  এবার পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ গরুর দুধে সোনার হদিসের আজব তথ্য জানিয়েছেন।

বর্ধমান শহরের টাউন হলে ‘ঘোষ এবং গাভীকল্যাণ সমিতি’র সভায় সোমবার দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন, গরুর দুধে সোনার ভাগ থাকে। তাই দুধের রং হলুদ হয়। তার ব্যাখ্যা, দেশি গরুর কুঁজের মধ্যে স্বর্ণনাড়ি থাকে। সূর্যের আলো পড়লে সেখান থেকে সোনা তৈরি হয়।  এমন ‘বৈজ্ঞানিক’ গবেষণা পৃথিবীর কোথাও হয়েছে বলে জানা নেই বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

অবশ্য বছর তিনেক আগে গুজরাটের জুনাগড় কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু বিশেষজ্ঞ চারশ’ গরুকে নিয়ে সমীক্ষার পরে দাবি করেন, গোমূত্রে  সোনা আছে। ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি এবং বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের প্রধান বিএ গোলাকিয়া এদিন দাবি করেন, ছ’টি প্রজাতির গরুর একশ’র বেশি মূত্রের নমুনা পরীক্ষা করে সোনার উপস্থিতি পেয়েছি। এই সোনা রয়েছে ক্লোরাইড যৌগ হিসেবে। গোমূত্র নিয়ে বিজেপি নেতারা নানা দাবি করেছেন। বিজেপি সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞা দাবি করেছিলেন, তিনি স্তনের ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন। গোমূত্র পান করে আর পঞ্চগব্য গ্রহণ করে নিজেকে সারিয়ে তুলেছেন। তবে বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ গরুর দুধে সোনার হদিস দিয়ে বিজেপি অনুগামীদের মধ্যে সাড়া ফেলে দিয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গ প্রাণী ও মৎস্যবিকাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন (ডেয়ারি) তরুণ কুমার মাইতি বলেছেন, গরুর দুধে অনেক কিছুই থাকে। তবে সোনা আছে বলে শুনিনি।  ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের ফার্মাকোলজির শিক্ষক স্বপন অবশ্য মনে করেন, বিজেপি আর বিজ্ঞানকে মেলানো কঠিন। ওরা বিলক্ষণ জানেন, গোদুগ্ধে কী আছে। অযথা এসব বলে জনতাকে বিভ্রান্ত করছেন, অনেক বড় সমস্যা থেকে তাদের নজর ঘুরিয়ে দিতে।

‘বিদেশি গরুরা গো-মাতা নয়, তারা সবাই আন্টি’: এদিকে, ঘোষ অবশ্য গরুর দুধে সোনা থাকার দাবিতেই থেমে থাকেননি। দেশি ও বিদেশি গরুর শ্রেণিবিন্যাসও করেছেন। দেশি গরুকে ‘গো-মাতা’ আখ্যা দিয়েছেন আর বিদেশি গরুদের ‘আন্টি’। বলেছেন, বিদেশি গরুরা গো-মাতা নয়, তারা সবাই আন্টি। কারণ, সেগুলো হাম্বা ডাকে না। তাই আন্টির পুজো করে দেশের কল্যাণ হবে না। বিজেপি নেতার এই সব বক্তব্যে রাজ্যের বিজ্ঞানী ও যুক্তিবাদীরা প্রবল সমালোচনায় মুখর হয়েছেন।

সোনালীনিউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue