শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

নাগপুরে বাংলাদেশ-ভারত ফাইনাল

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৯ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার ০৯:১৭ পিএম

নাগপুরে বাংলাদেশ-ভারত ফাইনাল

ঢাকা: তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-১ এ সমতা বিরাজ করছে। রোববার (১০ নভেম্বর) নাগপুরে যে দল জিতবে তারাই সিরিজ ঘরে তুলবে। বোঝাই যাচ্ছে এই ম্যাচের লড়াই কোনও অংশে কোনও ফাইনালের থেকে কম হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের নয়। সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আর সেই লক্ষ্যেই নিজেদের প্রমাণ করার তাগিদ রয়েছে গোটা দলের। বিরাট কোহলি বিশ্রামে থাকায় রোহিত শর্মার হাতে রয়েছে ভারতীয় দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব। দ্বিতীয় ম্যাচে সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। ১৫৪ রানের লক্ষ্যে নেমে তিনি ৪৩ বলে ৮৫ রানের ইনিংস খেলেছেন।

রোহিত শর্মা ফর্মে ফেরায় স্বস্তি ফিরেছে ভারতীয় ব্যাটিংয়েও। অন্যদিকে বাংলাদেশ দলে নেই একাধিক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার ও ম্যাচ উইনার। এর মধ্যে সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের নাম উল্লেখযোগ্য। সাকিব আপাতত ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ। তামিম তাঁর দ্বিতীয় সন্তানের জন্মের জন্য ক্রিকেট থেকে ছুটি নিয়েছেন। মনে করা হয়েছিল, এই দু'জনের অবর্তমানে দূর্বল হয়ে পড়বে বাংলাদেশ দল। কিন্তু প্রথম ম্যাচে যে দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশ তাতে তাদের হালকাভাবে নেওয়ার কোনও জায়গা নেই রোহিতদের সামনে।
 
প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মুশফিকুর রহিম দারুণ খেলে ম্যাচ শেষ করেছিল। সৌম্য সরকারও দারুণ সমর্থন করেছিলেন। অন্যদিকে নবাগত মোহাম্মদ নাঈম দ্বিতীয় ম্যাচে রাজকোট নিজের সেরাটা দিয়েছিলেন।  বাংলাদেশের হয়ে এই সিরিজে এখনও পর্যন্ত সেরা বোলিং করেছেন আমিনুল ইসলাম। তিনি চার উইকেট নিয়েছেন।

ভারতের দিকে তাকালে দেখা যাবে সব নজর রয়েছে ঋষভ পন্থের দিকে। এখনও পর্যন্ত তিনি নিজেকে প্রমান করতে পরেননি। কিন্তু তাঁকে যে পরিমাণ সুযোগ দিয়েছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট তা হয়তো অন্য কাউকে দেওয়া হয়নি। এখনও তাঁর সঙ্গেই রয়েছে দল, কোচ ও ম্যানেজমেন্ট। ব্যাট হাতে ব্যর্থতার পাশাপাশি উইকেটের পিছনেও বাংলাদেশ সিরিজে বেশ কিছু ভুল করেছেন তিনি। তাঁর ভুল ডিআরএস-এর সিদ্ধান্ত কেউ ভালোভাবে নেয়নি। 

অন্যদিকে, বল হাতে হতাশ করেছেন খলিল আহমেদ। অনেকবেশি রান দিয়ে কঠিন করে ফেলছেন ব্যাটসম্যানদের কাজ। তাঁকে নিয়েও ভাবার সময় এসেছে। কারণ এই ম্যাচ হেরে গেলে ঘরের মাঠে হারের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজে হারের মুখ দেখতে হবে। 

সোনালীনিউজ/আরআইবি/এমএএইচ