বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

পণ্য কেনার আগে মূল্য তালিকা দেখার আহ্বান ডিএনসিসি মেয়রের

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার ০২:৩৬ পিএম

পণ্য কেনার আগে মূল্য তালিকা দেখার আহ্বান ডিএনসিসি মেয়রের

ঢাকা : নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কেনার আগে জনগণকে মূল্যতালিকা দেখে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।

সোমবার (১৩ মে) দুপুর ১২টার দিকে উত্তরা ৬নং সেক্টর কাঁচাবাজারে আকস্মিক পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এ আহ্বান জানান।

মেয়র বলেন, ‘নির্ধারিত মূল্যের অতিরিক্ত নেয়া হলে অসাধু ব্যবসায়ীদের আইন অনুযায়ী জেল ও জরিমানা করা হবে। বাজারে সকল পণ্যের যথেষ্ট সরবরাহ রয়েছে। অতি মুনাফালোভী ব্যবসায়ীদের বিবেক জাগ্রত হোক।’

এ সময় তিনি পর্যায়ক্রমে ডিএনসিসির অন্যান্য বাজারও পরিদর্শন করবেন বলে জানান।

উত্তরা ৬ নম্বর সেক্টর কাঁচা বাজার পরিদর্শনের আগে মেয়র উত্তরার শাহজালাল এভিনিউ হয়ে রাজউক কলেজ রোডে যান। সেখানে রাস্তা ও ফুটপাতে অবৈধ দোকান দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং ডিএনসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলেন।

নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার প্রায় ৩০টি অস্থায়ী দোকান রাস্তা ও ফুটপাত থেকে উচ্ছেদ করেন। উপস্থিত ডিএনসিসির নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট সোহেল রানা এ সময় মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রয়ের অভিযোগে ২টি মুদি দোকানকে ১৫ হাজার টাকা করে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। তাছাড়া ফুটপাত দখল করে ব্যবসা করায় ২ জনকে মোট ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

একটি দোকানে মেয়র যাওয়ার পূর্বে কাঁচামরিচ কেজি প্রতি ৮০ টাকা এবং মেয়র যাওয়ার পরে একই কাঁচামরিচ কেজি প্রতি ৪২ টাকা চাওয়া হলে এবং মূল্যতালিকা পাওয়া না যাওয়ায় ডিএনসিসির অপর নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। তাছাড়া তিনি দুইটি দোকানে বিভিন্ন পণ্যের লেভেল না থাকায় ২০ হাজার টাকা করে মোট ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এসময় কয়েকটি দোকানে গিয়ে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

মেয়রের পরিদর্শন শেষে ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার ভ্রাম্যমাণ আদালত অব্যাহত রাখেন। এ সময় উত্তরায় 'মীনা বাজারে' ধূমপানের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করায় ১ লাখ টাকা এবং ডাল, রসুন ও আদা নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি নেয়া, বিএসটিআইয়ের অনুমোদন না থাকা এবং অন্যান্য অভিযোগে ভোক্তা অধিকার আইন অনুযায়ী ২ লাখ টাকাসহ মোট তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। 'শপ এন সেভে' কাঁচা মরিচ ও বেগুন নির্ধারিত মূল্যের বেশি নেয়া, বিএসটিআইয়ের অনুমোদন না থাকায় এবং অন্যান্য অপরাধে ভোক্তা অধিকার আইন অনুযায়ী ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

পরিদর্শনকালে অন্যান্যের মধ্যে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আফসার উদ্দিন খান, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর জাকিয়া সুলতানা উপস্থিত ছিলেন।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue