বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬

বনশ্রী থেকে মরদেহ উদ্ধার

পরকীয়ার ছবি তুলে স্ত্রীর ফেসবুকে পাঠাতো স্বামী, ঘরে চলতো নির্যাতন

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, সোমবার ০২:৩৫ পিএম

পরকীয়ার ছবি তুলে স্ত্রীর ফেসবুকে পাঠাতো স্বামী, ঘরে চলতো নির্যাতন

ঢাকা: রামপুরা বনশ্রী থেকে ব্যাংক কর্মকর্তার স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরিবারের দাবি স্বামী পরকীয়ার জেরে হত্যা করা হয়েছে তাকে। শনিবার (১৩ এপ্রিল) বিকেলে পুলিশ ওই বাসা থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাশের বাসায় থাকা একজন ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো- ‘রামপুরা বনশ্রী সি ব্লক ২নং রোড়, ২০ নং বাসার ৫ম তলা আমার বাসার পাশেই ঠিক আমার বেডরুমের জানালার পাশে ওই বাসার জানালা। ঘরে যখনই রাগারাগি মারামারি করতো সবই আমি শুনতে পেতাম। আমি অনেক কিছুর প্রতিবাদ করেছি প্রায় পুলিশের ভয় দেখিয়েছি। সপ্তাহ খানিক আগে আমি ওই বাসার বাড়িওয়ালাসহ দারোয়ানকে সর্তক করেছি। অথচ আজই মৃত্যুর যমদূত মেয়েটির দুয়ারে এসে দাঁড়িয়ে জানটা কবজ করে নিলো। আগামীকাল এই দম্পতির বিবাহ বার্ষিকী। শেষ বিয়ের কাপড় পরে পরপারে পথে চলে গেলো নরপিশাচ স্বামীর হাতে খুন হয়ে। ঘরের সুন্দরী বউ রেখে জালিম নরপিশাচ স্বামী রায়হান মোস্তফা পরকিয়া প্রেম করেছে শামিমা নাছরিন নামে এক মেয়ের সাথে।’

‘নরঘাতক রায়হান প্রতিদিন তার প্রেমিকার সাথে যা অপকর্ম করতো তা ছবি তুলেই স্ত্রীর ফেসবুকে পাঠাতো আর বলতো তোকে ছেড়ে নাছরিনের সাথে বিয়ে করবো। যাতে স্ত্রীর সেচ্চায় স্বামীর ঘর ছেড়ে চলে যায়।’

‘এই দম্পতির তিন মেয়ে। এক মেয়ে নবম শ্রেনীতে পড়ে, একমেয়ে সাত বছর এবং ছোট মেয়ে দেড় বছর। আমি প্রতিরাতে ঘুমাতে পারতাম না সেই নির্যাতিত মেয়েটির চিৎকার শুনে।’

‘শাশুড়ীর পরিবারের লোকেরা বলছে ফাঁসি দিয়ে মরেছে। কিন্তু ফাঁসিতে মরেনি। আমার মনে হয় বালিশ চাপা দিয়ে মেরেছে। কারণ ফাঁসির লাশের জিহবা বের হয়ে যায়। কিন্তু লাশের দিকে তাকালে মনে হয় ঘুমিয়ে আছে।’


সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue