মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬

পাকিস্তানে ভিভিআইপি নিরাপত্তা বলয়ে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০১ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার ১২:২২ পিএম

পাকিস্তানে ভিভিআইপি নিরাপত্তা বলয়ে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা

ঢাকা : শ্রীলংকা ক্রিকেট টিমকে ভিভিআইপি নিরাপত্তা দিয়ে দিয়ে পাকিস্তান করাচি আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে নেয়া হচ্ছে। এতো কঠোর নিরাপত্তা অন্য কোন দেশের ক্রিকেটারদের দেয়া হয় না। এমন নজিরবিহীন নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যদিয়ে পাকিস্তান ১০ বছর আগে শ্রীলঙ্কা  দলের ওপর চালানো সন্ত্রাসী হামলার পর দেশে বন্ধ হওয়া আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আবারও ফেরাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

এদিকে অনেক জল্পনা কল্পনার পর পাকিস্তান সফরে এসেছে শ্রীলংকা। তবে দলের সাথে আসেননি অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে, লাসিথ মালিঙ্গাসহ দশজন সিনিয়র ক্রিকেটার। দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে করাচীর স্টেডিয়ামে অনুশীলন করাতে আসা লংকান দলের কোচ রুমেশ রত্নায়েকে জানিয়েছেন, এবার না এলেও ডিসেম্বরে পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত টেস্ট সিরিজে দলের সাথে আসবেন সবাই।

কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাঝেই পাকিস্তানে পা রেখেছিল শ্রীলংকা দল। হোটেল, টিম বাস কিংবা স্টেডিয়াম, সবখানেই থাকছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজটা নির্বিঘ্নে পার হলে টেস্ট সিরিজ খেলতে আর আপত্তি থাকবে না করুনারত্নেদের, বিশ্বাস রত্নায়েকের, ‘এই সিরিজটা ডিসেম্বরের টেস্ট সিরিজের জন্য একটা পরীক্ষা। এটা ঠিকঠাকভাবে হয়ে গেলে শ্রীলংকার অন্যরাও পাকিস্তানে আসার ব্যাপারে উৎসাহ পাবে। তবে আমরা কাউকে জোর করিনি, ভবিষ্যতেও করব না। তারা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটাকে সম্মান করতে হবে। এই সিরিজে সবকিছু ভালোভাবে হলে শুধু শ্রীলংকা না, অন্য দেশের ক্রিকেটাররাও এখানে আসতে আগ্রহী হবেন।’  

শ্রীলংকা দল প্রথম ওয়ানডের বৃষ্টির কারণে ভেস্তে যায়।  দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জয় পায় পাকিস্তান।  

২০০৯ সালের জানুয়ারিতে দেশের মাটিতে শ্রীলংকার বিপক্ষে সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজ খেলেছিলো পাকিস্তান। ঐ সফরে টেস্ট সিরিজে লাহোরে দ্বিতীয় ম্যাচের আগে শ্রীলংকা দল বহনকারী বাসে জঙ্গি হামলার পর পাকিস্তানের মাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নির্বাসন ঘটে। অবশ্য ২০১৭ সালের অক্টোবরে পাকিস্তানের হোম সিরিজ হিসেবে লাহোরে তিন ম্যাচ সিরিজের ১টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছিলো শ্রীলংকা।

এবার দীর্ঘ দশ বছর পর পাকিস্তানে সীমিত ওভারের পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলছে লংকানরা। তবে নিরাপত্তা শঙ্কায় এবারের পাকিস্তান সফরে শ্রীলংকার সিনিয়র খেলোয়াড়রা দলের সাথে আসেনি। তারপরও ২০০৯ সালের পর করাচিতে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ আয়োজন করতে পারাকে ঐতিহাসিক বলে আখ্যায়িত করছে পাকিস্তান।
 
সোনালীনিউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue