মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর, ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭

পাখির প্রতি ভ্যানচালক রিপনের ভালোবাসা

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার ০২:২০ পিএম

পাখির প্রতি ভ্যানচালক রিপনের ভালোবাসা

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার গাড়াগঞ্জ এলাকার ভ্যানচালক রিপন হোসেন। পেশায় একজন ভ্যানচালক। ভোর হলেই তার জন্য অপেক্ষা করে শালিক পাখির ঝাঁক। নিজের আয় রোজগার বেশী না হলেও প্রতিদিন সকালে তার স্বল্প আয় থেকে কিছুটা বাঁচিয়ে ক্ষুধার্ত পাখিদের খাবার দেন তিনি। একদিকে যেমন পাখিদের প্রতি পেয়েছেন এক ভালোবাসা, অপরদিকে পাখিপাগল হিসেবে তার পরিচিতি ছড়িয়ে পড়েছে এলাকায়।

উপজেলার গাড়াগঞ্জ বাজারের মধু বিশ্বাসের চায়ের দোকানে গিয়ে দেখা যায়, পাখি পাগল রিপন হোসেন দোকান থেকে খাবার কিনে রাস্তায় ছিটিয়ে দিচ্ছেন। আর শালিক পাখির ঝাঁক যেন খাবার খাওয়ার প্রতিযোগিতায় নেমেছেন। খাবার খাওয়ার দৃশ্য দেখে রিপনের ঠোঁটে ছিল তৃপ্তির হাসি।

ভ্যানচালক রিপনের সাথে কথা বলে জানা যায়, গাড়াগঞ্জ বাজারপাড়া এলাকার বাসিন্দা তিনি। ব্যাটারী চালিত ভ্যান চালিয়ে যা রোজগার হয় তা দিয়েই চলে তার সংসার। প্রতিদিন সকালে বাড়ি থেকে বের হয়ে আসার পর মধু বিশ্বাসের দোকানের সামনে এলেই শালিকের ঝাঁক তাকে দেখে কিচির মিচির শব্দ শুরু করেন। নিজের অল্প আয় থেকে টাকা বাঁচিয়ে পাউরুটি, চানাচুরসহ নানা প্রকার খাবার দেন তিনি। পাখিদের কিচির মিচির শব্দ আর খাবার শেষে পাখিদের জলকেলিতে মাতার দৃশ্য যেন মনোমুগ্ধকর। যা দেখে মুগ্ধ আশপাশের মানুষগুলো।

চা দোকানি মধু বিশ্বাস বলেন, সকালে পাখিগুলো যখন খাবার খাই তখন দেখতে খুবই ভালো লাগে। কিচির মিচির শব্দ করে যা শুনে মনটা ভরে যায়।

একই এলাকার হেলাল উদ্দিন বলেন, করোনার কারণে এখন মানুষের আয় রোজগার কম। মাঠে-ঘাটে এখন খাবার কম। যে কারণে শালিক পাখির দল বাজারে ভীড় করে। রিপন হোসেন খাবার দেন এতে স্থানীয় অনেকেই মাঝে মাঝে সহযোগিতা করে। তারপরও তা পর্যাপ্ত না।

এ ব্যাপারে পরিবেশ ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণ কমিটির ঝিনাইদহ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বলেন, ব্যক্তি উদ্যোগে যারা পাখির খাবারের ব্যবস্থা করেন তাদের সরকারিভাবে সহযোগিতা করা উচিত। শুধু সহযোগিতায় নই পাখির সংরক্ষণ ও তাদের খাবারের ব্যবস্থা যদি করা হয় তাহলে একসময় ঝিনাইদহ জেলা হবে পাখির অভয়াশ্রমের মডেল।

ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ বলেন, করোনা মহামারিতে শুধু মানুষ নয় পক্ষীকুলও খাবার সংকটে আছে। যারা পাখিদের খাবারের ব্যবস্থা করছেন তাদের আমরা সাধুবাদ জানায়। আমরা সবসময় তাদের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত আছি।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue