সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬ আশ্বিন ১৪২৭

পুঁজিবাজার থেকে ১০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন রাজস্ব আয়

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার ০১:৫২ পিএম

পুঁজিবাজার থেকে ১০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন রাজস্ব আয়

ঢাকা : দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) থেকে সদ্যবিদায়ী ২০১৯-২০ অর্থবছরে সরকার রাজস্ব আদায় হয়েছে মাত্র ১০৪ কোটি টাকা। যা গত ১০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। বছরজুড়ে বাজারে মন্দা বিরাজ করা ও চলমান করোনা সঙ্কটে ৬৬ দিন শেয়ার লেনদেন বন্ধ থাকায় এ খাত থেকে সরকারের রাজস্ব আয় কমেছে বলে জানান বাজার সংশ্লিষ্টরা।

ডিএসই’র তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, বিদায়ী অর্থবছরে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে সরকার রাজস্ব আদায় করেছে ১০৪ কোটি টাকা। যা আগের অর্থবছরে (২০১৮-১৯) ছিল ২৫১ কোটি টাকা। বছরের ব্যবধানে এ খাত থেকে সরকারের রাজস্ব আয় কমেছে ১৪৭ কোটি বা ৫০ শতাংশের বেশি।

পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টদের মতে, গত অর্থবছর শুরুর আগ থেকেই বাজারে মন্দা শুরু হয়। নিম্নমুখী ধারায় চলে সবগুলো সূচক। বাজারে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ কমে যায়। একইসঙ্গে কমে যায় দৈনিক গড় লেনদেন। এরফলে, পুঁজিবাজার থেকে সরকারের রাজস্ব আয় কমেছে।

ডিএসইর পরিচালক ও সাবেক সভাপতি শাকিল রিজভী বলেন, একদিকে টানা দরপতন ও লেনদেন কমে যাওয়া। অন্যদিকে চলমান করোনা সঙ্কটের কারনে দুই মাসের বেশি সময় শেয়ারবাজারে লেনদেন বন্ধ থাকার র কারণে সরকারের রাজস্ব আদায় কমেছে, সমানভাবে কমেছে স্টক এক্সচেঞ্জ ও ব্রোকারেজ হাউসের আয়ও।

পুঁজিবাজার থেকে দু’ভাবে রাজস্ব আদায় করে সরকার। এর একটি হচ্ছে- শেয়ার লেনদেনের ওপর উৎসে আয়কর বাবদ রাজস্ব। অন্যটি হলো- পরিচালক, উদ্যোক্তা শেয়ারহোল্ডার ও প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারধারীদের শেয়ার বিক্রি বাবদ মূলধনী মুনাফা থেকে রাজস্ব আয়।

এর মধ্যে আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ এর ৫৩ বিবিবি ধারা অনুযায়ী ব্রোকারেজ হাউজগুলোর মাধ্যমে শেয়ার বেচাকেনা থেকে এবং আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪-এর ৫৩এম ধারা অনুযায়ী উদ্যোক্তা পরিচালকদের ও প্লেসমেন্ট শেয়ার বিক্রি থেকে রাজস্ব আদায় করে থাকে।

ডিএসই’র তথ্যমতে, বিদায়ী অর্থবছরে নভেম্বরে শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন থেকে রাজস্ব আদায় হয় ৬৮ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। উদ্যোক্তা পরিচালক বা প্লেসমেন্ট শেয়ার বিক্রি থেকে আদায় হয় ৩৪ কোটি ৫৭ লাখ টাকা। এ হিসাবে বছরটিতে সরকার মোট রাজস্ব পেয়েছে ১০৪ কোটি টাকা।

২০১০-১১ অর্থবছরে সরকারের রাজস্ব আদায় করেছিল ৪৪৭ কোটি টাকা। যা ছিল গত ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। এরপর থেকেই পুঁজিবাজার মন্দার সাথে সরকারের রাজস্ব আদায় কমতে থাকে। ২০১১-২০১২ অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিল ২৭২ কোটি টাকা।

এছাড়া ২০১২-২০১৩ অর্থবছরে ১২৭ কোটি টাকা, ২০১৩-২০১৪ অর্থবছরে ১৫৪ কোটি টাকা, ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে ১৭৪ কোটি টাকা, ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে ১৫৮ কোটি টাকা, ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে ২৪৬ কোটি টাকা, ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে ২৩৩ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করা হয়েছে। সর্বশেষ ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে ২৫১ কোটি টাকা সরকারের রাজস্ব আদায় করে।

সোনালীনিউজ/এলএ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue