বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬

প্রথমবারের মতো ম্যালেরিয়ার টিকা

স্বাস্থ্য ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার ০৮:১০ এএম

প্রথমবারের মতো ম্যালেরিয়ার টিকা

ঢাকা : প্রতিবছর বিশ্বের ২০ কোটিরও বেশি মানুষ ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হন, যাদের বেশিরভাগই শিশু। এ অবস্থায় বিশ্বে প্রথমবারের মতো শিশুদের টিকাদান কর্মসূচিতে ম্যালেরিয়ার টিকা অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। আফ্রিকার দেশ কেনিয়া, ঘানা এবং মালাওয়ির বিভিন্ন স্থানে গতকাল শুক্রবার থেকে শিশুদের এই টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। এই টিকা ম্যালেরিয়ার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয় এনে দেবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা।

রয়টার্স জানায়, আগামী তিন বছরের মধ্যে কেনিয়ার তিন লাখের বেশি শিশুকে ম্যালেরিয়ার টিকা দেওয়া হবে। ম্যালেরিয়াতে গোটা পৃথিবীতে প্রতিবছর যত মানুষ মারা যায়, তার অর্ধেকই মারা যায় আফ্রিকা অঞ্চলের পাঁচটি দেশে।

গত এপ্রিলে প্রথমবারের মতো পরীক্ষামূলক টিকার কথা জানানো হয়। ৩০ বছর ধরে গবেষণার পর এই টিকা আবিষ্কৃত হয়েছে। পরীক্ষামূলকভাবে এই টিকা প্রথম দেওয়া হয় আফ্রিকার মালাওয়িতে। ‘আরটিএসএস’ নামের এ টিকা শরীরের প্রাকৃতিক প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে ম্যালেরিয়ার জীবাণুর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহায্য করবে। এ টিকা বিশ্বজুড়ে লাখ লাখ মানুষের জীবন রক্ষা করবে বলে আশা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও)।

প্রতিটি শিশুকে চার ভাগে (ডোজ) এই টিকা দেওয়া হবে এবং অবশ্যই শিশুর দুই বছর বয়স হওয়ার আগে চতুর্থ ডোজ গ্রহণ করতে হবে। এ বিষয়ে ডব্লিউএইচও জানিয়েছিল, পরপর তিন মাসে তিন ডোজ এবং ১৮ মাস পর চতুর্থ ডোজ।

পরবর্তী ধাপে পাইলট প্রজেক্টের অংশ হিসেবে ঘানা এবং কেনিয়ায় ‘আরটিএসএস’ নামে এই প্রতিষেধক দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়। মোট তিন লাখ ৬০ হাজার শিশুকে এই প্রতিষেধক দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এর পরে বিশ্বের আর কোনো দেশে এই প্রতিষেধক পাঠানো যায়, তা ঠিক করবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বিশ্বের সবচেয়ে পুরাতন এবং প্রাণঘাতী রোগগুলোর একটি ম্যালেরিয়ায় প্রতিবছর চার লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়, যাদের বেশিরভাগই শিশু। ২০১৭ সালে বিশ্বজুড়ে ম্যালেরিয়ায় যত মৃত্যু হয়েছে, তার ৯৩ শতাংশই আফ্রিকার দেশগুলোতে।

কেনিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক ওয়েকেসা মাসাসাবি বলেছেন, আমাদের এখনো পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে শতকরা ২৭ শতাংশ ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়। আমরা নতুন ভ্যাকসিন সম্পর্কে সচেতন করার জন্য নানা পদক্ষেপ নিয়েছে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই