শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩ আশ্বিন ১৪২৭

প্রবাসীদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেয়ার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৯ মার্চ ২০২০, বৃহস্পতিবার ০৪:১৩ পিএম

প্রবাসীদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেয়ার নির্দেশ

ঢাকা: বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধে বিদেশফেরত প্রত্যেককে কোয়ারেন্টাইনে রাখতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। যাবতীয় ব্যবস্থা নিতে সিভিল এভিয়েশন অথরিটি (বেবিচক) ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের বেঞ্চ এ আদেশ দেন। বাংলাদেশে নতুন করে আরো তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গতকাল পর্যন্ত এই সংখ্যা ছিল ১৪ জনে। নতুন তিনজন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় দেশে মোট ১৭ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন।

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) আয়োজিত ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ।

তিনি বলেন, কভিড-১৯ ভাইরাতে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় এবং এ পর্যন্ত একজন ব্যক্তি মারা গেছেন। নতুন করে যে তিনজন আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে একজন তরুণী, যার বয়স ২২ বছর। ৬৫ বছর বয়সী একজন পুরুষ ও ৩২ বছর বয়সী এক যুবক রয়েছেন। তারা ইতালিফেরত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তারা। নতুন করে যে তিনজন আক্রান্ত হয়েছেন তাঁরা ইতালি ফেরত এক ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন নতুন আক্রান্ত হওয়া তিনজন একই পরিবারের সদস্য। তাঁদের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী। পরিবারের সদস্যদের আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি খুব তাৎপর্যপূর্ণ।

গত ৮ মার্চ প্রথম করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত করা হয়। এরপর প্রায় প্রতিদিন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন একজন। সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন তিনজন। আক্রান্তরা কেউ প্রবাসফেরত, আবার কেউ ওই প্রবাসফেরতদের সংস্পর্শে থাকা স্বজন বলে জানাচ্ছে সরকারের আইইডিসিআর।

এদিকে নতুন করে সারা দেশে এক হাজার ১০০ জনকে পর্যবেক্ষণে (কোয়ারেন্টাইন) রাখা হয়েছে। এছাড়া ভাইরাসটি যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য সব পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার।

সোনালীনিউজ/টিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue