মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

সংবাদ সম্মেলনে মিন্নির বাবা

প্রভাবশালী মহলকে বাঁচাতে পুলিশ মিন্নিকে ফাঁসাচ্ছে

বরগুনা প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৪ জুলাই ২০১৯, বুধবার ০৩:১৮ পিএম

প্রভাবশালী মহলকে বাঁচাতে পুলিশ মিন্নিকে ফাঁসাচ্ছে

বরগুনা: বরগুনার চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হত্যা মামলার মামলার প্রধান সাক্ষী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর এই মামলার তদন্তভার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) স্থানান্তরের দাবি জানিয়েছেন। 

বুধবার ২৪ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে বরগুনা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান।

মিন্নির বাবা অভিযোগ করে বলেন, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে পুলিশ মিন্নির জবানবন্দি নিয়েছে। প্রভাবশালী মহলকে বাঁচাতে পুলিশ এ ঘটনায় মিন্নিকে ফাঁসাচ্ছে। তাই এ মামলার তদন্ত পিবিআইতে স্থানান্তরের দাবি জানাচ্ছি।

মিন্নি তার স্বামী রিফাতকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করেছে দাবি করে মোজাম্মেল হক বলেন, আপনারা সবাই ভিডিও ফুটেজে দেখেছেন রিফাতকে বাঁচাতে মিন্নি জীবন বাজি রেখেছে। শত চেষ্টা করেও তাকে রক্ষা করতে পারেনি।

মোজাম্মেল হক কিশোর বলেন, কুচক্রী মহল এ ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ সুনাম কলকাঠি নাড়ছেন। তিনি প্রকৃত আসামিদের বাঁচাতে মিন্নিকে এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত করার চেষ্টা করছেন।

রিফাত ফরাজী ও রিশানকে রিফাত শরীফ হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন মিন্নির বাবা বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের আগে রিফাতের সঙ্গে বরগুনা জেলা পরিষদের প্রশাসক দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী সামসুন্নাহার খুকির বাকবিতণ্ডা হয়। বিষয়টি নিয়ে সামসুন্নার খুকি তার বোনের ছেলে রিফাত ফরাজী ও রিশান ফরাজীর কাছে নালিশ করেন। এরপর রিফাত ও রিশান ফরাজী রিফাত শরীফকে হত্যার পরিকল্পনা করে। বিষয়টি মিন্নি আমাকে জানিয়েছিল।

তিনি আরো বলেন, যেদিন হত্যাকাণ্ডটি সংগঠিত হয়, সেদিন রিফাত ও রিশান ফরাজী মিন্নিকে বলেছিল, ‘তুই আমার মাকে গালাগাল করেছিস। আমার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বল।’

মোজাম্মেল হোসেন কিশোর বলেন, 'রিফাত ও রিশান ফরাজী সামসুন্নাহার খুকিকে মা বলে ডাকতেন। আমার ধারণা বাকবিতণ্ডার প্রতিশোধ নিতেই রিফাত ও রিশান ফরাজী রিফাত শরীফকে হত্যার পরিকল্পনা করে ও হত্যাকাণ্ডের অগ্রভাগে থাকে।’

সংবাদ সম্মেলনে মিন্নির মা জিনাত জাহান মনি, ছোট বোন ছামিরা মেঘলা, ছোট ভাই আবদুল মুহিত ক্বাফিও উপস্থিত ছিলেন।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue