শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯, ৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রাজ্জাকের সততার পুরস্কার ষ্ট্যান্ড রিলেজ

ঝালকাঠি প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৭ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার ১২:১০ পিএম

প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রাজ্জাকের সততার পুরস্কার ষ্ট্যান্ড রিলেজ

ঝালকাঠি: ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার সৎ ও নিষ্ঠাবান সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. আব্দুল রাজ্জাক হোসেইনকে ষড়যন্ত্র ও হয়রাণীমূলক বদলির প্রতিবাদে স্বোচ্ছার হয়ে উঠছে কাঠালিয়া উপজেলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, অভিভাবক ও স্কুল পরিচালনা কিমিটির সদস্যসহ সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ। এ বদলী বাতিলের দাবিতে কাঠালিয়া সদর ও আমুয়া ইউনিয়ানের ক্লাষ্টারসহ বিভিন্ন বিদ্যালয়ের দুই শতাধিক প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষক ও এসএমসির সভাপতির স্বাক্ষরিত একটি স্মারকলিপি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বরাবরে দেয়া হয়।

স্মারক লিপিতে শিক্ষক ও এসএমসির সভাপতিরা জানান, সহকারী শিক্ষা অফিসার আব্দুল রাজ্জাক একজন সৎ, মেধাবী, পরিশ্রমী  ও শিক্ষাবান্ধব কর্মকর্তা। গত দুই বছরের তার গৃহীত কর্মকান্ড ও উদ্যোগে কাঠালিয়া ও আমুয়া ক্লাস্টারের বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার মানান্নোয়ন ও দূর্নীতিরোধে নানামূখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। বিশেষ করে শিক্ষকদের যথাসময়ে বিদ্যালয়ে আগম-প্রস্থান, পাঠে আন্তরিকতা, রিলিজ স্লিপের অর্থের সদব্যবহার, বঙ্গবন্ধু  ও মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার, ওয়ানডে অন ওয়ার্ড বাস্তবায়নে বাতিঘর কুইজ কনেটেস্ট, ক্ষুদে ডাক্তার কার্যক্রম, এক্টিভ মাদার’স ফোরামকাব, সততা ষ্টোর লষ্ট এন্ড ফাউন্ড কর্ণার, শতভাগ মিডডে মিল ও হলদে পাখিসহ প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চত করণের লক্ষে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করেন। 

এতে কতিপয় দূর্ণীতিবাজ ব্যক্তি ও একটি চক্র নিজ স্বার্থে আঘাত হানায় তারা মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন অভিযোগ বেনামে বিভিন্ন দফতরে দাখিল ও দূর্ণীতিবাজ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের যোগসাজসে সরেজমিনে কোন তদন্ত ছাড়াই এ বদলির অবৈধ আদেশ করাতে সক্ষম হন। যা সম্পূর্ণ বেইআনি। এভাবে যদি কোন সৎ অফিসারকে বিনা অপরাধে শাস্তি পেতে হয় ,তবে কিভাবে সমাজে সুশাসন প্রতিষ্ঠা হবে? 

বাংলাদেশ প্রাথমিক প্রধান শিক্ষক সমিতির কাঠালিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি দিবরুবা পারভীন জানান, আঃ রাজ্জাক স্যার এমন সৎ ও আর্দশবান যে তিনি কোন বিদ্যালয়ে গিয়ে চা-বিস্কুট পর্যন্ত গ্রহণ করেন না। হাতে গোনা কতিপয় স্কুল ফাঁকিবাজ ও দূর্নীতিগ্রস্ত  শিক্ষক তাদের স্বার্থে মিথ্যে ও ভূয়া অপবাদ দিয়ে স্যারকে বদলী করানো হয়েছে। আমি চাকরি জীবনে এই প্রথম দেখলাম যে, নাম বিহীন কোন অভিযোগে এবং কোন তদন্ত ছাড়াই সরকারি কোন কর্মকর্তাকে ষ্ট্যান্ড রিলিজ হতে হয়। 

ঝালকাঠি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ নবেজ উদ্দীন সরকার বলেন, সহকারী শিক্ষা অফিসার আঃ রাজ্জাক নিঃসন্দেহে একজন ভাল অফিসার। তাঁর বদলীর বিষয়টি কিভাবে হয়েছে তা আমার বোধগম্য নয়। হয়তো এ ব্যাপারে কোন উপর মহলের হাত থাকতে পারে।

উল্লেখ্য, গত ২৮/১০/১৯  তারিখ প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের সহকারি পরিচালক(প্রশাসন) এর স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুল রাজ্জাক হোসেইনেক কাঠালিয়া থেকে বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলায় স্বপদে বদলীর আদেশ দেয়া হয়।

সোনালীনিউজ/এইচএন

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue