বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬

ফলাফল না নিয়ে বাড়ি ফিরবেন না

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২২ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার ০৩:৩৫ পিএম

ফলাফল না নিয়ে বাড়ি ফিরবেন না

ঢাকা : ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল।

তিনি বলেন, আমাদের পক্ষে সাধারণ মানুষের যে গণজোয়ার, তা দেখে আমার প্রতিপক্ষ আতিকুল ইসলাম ভয় পেয়েছেন। তিনি মানসিক অশান্তিতে আছেন। এ কারণেই উনি আমার ওপর হামলার ঘটনাকেও অসত্য অবাস্তব কথা বলছেন।

বুধবার (২২ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর আশকোনা হাজী ক্যাম্প এলাকায় গণসংযোগকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ধানের শীষের প্রচারণার পাশেই আওয়ামী লীগের প্রচারণা চলছে। এতে সংঘর্ষ হওয়ার আশঙ্কা আছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের কর্মীরাও তাদের নেতাদের কথা ও কাজ দেখে ঘৃনা প্রকাশ করছে এবং বিরক্ত হচ্ছে। সকলে চায় আনন্দ উৎসবের মধ্যে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন। কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতারা সেটা চায় না।

পথসভায় অংশ নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষনেতা ও জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব বলেন, আপনারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন। বিকাল ৪ টা পযর্ন্ত ভোট দিয়ে ফলাফল না নিয়ে বাড়ি ফিরবেন না। এটা আপনাদের ন্যায্য অধিকার। বিএনপির প্রার্থী ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ধানের শীষের প্রার্থী তাবিথ আউয়ালকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করুন।
 
তিনি বলেন, তাবিথ আউয়ালকে ভোট দিলে মেট্রোপলিটন সরকার করা হবে। আপনারা নিরাপদে রাজধানীতে বসবাস করতে পারবেন।

মঙ্গলবার রাজধানীর গাবতলীতে নির্বাচনী প্রচারের সময় তাবিথ আউয়ালের ওপর হামলা হয়। এ ঘটনায় তার কর্মী-সমর্থক মিলিয়ে ৮০ জন আহত হওয়ার অভিযোগ করেছে বিএনপি।

এ বিষয়ে তাবিথ আউয়াল আজ বলেন, আমরা ইসিতে সুস্পষ্ট অভিযোগ দিয়েছি। হামলার সময় ওই এলাকার কাউন্সিলর প্রার্থী উপস্থিত ছিলেন। আমাকে টার্গেট করেই হামলাটি করা হয়েছিল। শুধু মাথায় ও মুখে আমি আঘাত পেয়েছি।

পুলিশ মামলা নিচ্ছে না অভিযোগ করে তাবিথ বলেন, আমার প্রতিপক্ষ পুলিশ প্রশাসনকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। মঙ্গলবার রাতে আমরা চেষ্টা করেছিলাম থানায় একটি মামলা করতে। কিন্তু সেই মামলা গ্রহণ করা হয়নি। দারুসসালাম থানার ওসি মামলা নেননি।

নির্বাচন কমিশন নিয়ে অভিযোগের সুর ছিল ধানের শীষের মেয়রপ্রার্থীর কণ্ঠে। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন কতটুকু নিরপেক্ষ কাজ করছে তা দেখার বিষয়। মঙ্গলবার আমার প্রচারে হামলা হয়েছে। অনেকে আহত হয়েছি। আমরা নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছি। তারা তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ৪৮ ঘণ্টা সময় নিয়েছে। আমরা অপেক্ষা করছি– আমরা দেখতে চাই, তারা কী পদক্ষেপ নেয়।

‘নির্বাচন কমিশনের উচিত ছিল আগে থেকেই অ্যাকটিভ হওয়া। একজন ম্যাজিস্ট্রেটকে সঙ্গে রাখা’-যোগ করেন তাবিথ।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, যুবদল উত্তরের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিল্টনসহ বিএনপি ও তার অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue