রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৫ আশ্বিন ১৪২৭

বঙ্গবন্ধু কোন দলের নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৮ আগস্ট ২০২০, শনিবার ০৪:৫৬ পিএম

বঙ্গবন্ধু কোন দলের নয়

ফাইল ছবি

ঢাকা: ঢাকা-১৮ উপ-নির্বাচনে জাতীয় পার্টি শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত মাঠে থাকবে। একটি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে জাতীয় পার্টি প্রতিটি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করছে। যারা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর সাথে কাজ করবেনা, তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

শনিবার (৮ আগস্ট) দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান-এর বনানী অফিস মিলনায়তনে ঢাকা-১৭ আসনের ৭টি থানার জাতীয় পার্টি নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে পার্টির চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ঢাকা-১৭ আসন ছিলো আমাদের, এই আসনে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বার বার নির্বাচিত হয়েছেন। আসনটি আমরা মহাজোটকে ছেড়ে দিয়েছি। আমরা আশা করছি, ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে মহাজোট প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টি প্রার্থী নির্বাচন করতে পারবেন। এ ব্যাপারে মহাজোটের সাথে আলোচনা হবে বলেও জানান জিএম কাদের।
 
এসময় জিএম কাদের আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সারা জীবন দেশ ও মানুষের স্বার্থে সংগ্রাম করেছেন। বঙ্গবন্ধুর অবদান কোনভাবেই অস্বীকার করা যাবে না। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সংসদেই বলেছেন, জাতীয় পার্টি বঙ্গবন্ধুকে জাতির জনকের মর্যাদা দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বিশেষ কারণে সেটা করতে পারেননি। তবে, সংসদে জাতির জনক মর্যাদা দেয়ার বিষয়ে জাতীয় পার্টি ভোট দিয়েছিলেন।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন,  বঙ্গবন্ধু কোন দলের নয়, বঙ্গবন্ধু সারাদেশের সব দলের। তাই ১৫ আগস্ট জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের সংসদীয় সরকার ব্যবস্থায় সরকার প্রধান না চাইলে কিছুই হবে না। তাই যারা রাজপথে হরতাল ও জ্বালাও-পোড়াও এবং বিশৃংখলা সৃষ্টি করে কোন দাবি আদায় করা সম্ভব নয়।

জিএম কাদের বলেন, জাতীয় পার্টি বিরোধী দল হিসেবে ইতিবাচক রাজনীতি করছে। সংসদ ও রাজপথে আমরা যুক্তি দিয়ে কথা বলছি। আমরা দেশ ও জানগনের পক্ষে আমাদের বক্তব্য তুলে ধরছি। বলেন, সাধারণ মানুষ জাতীয় পার্টির রাজনীতি গ্রহণ করেছেন, তাই জাতীয় পার্টির সমর্থন বেড়েই চলেছে। দেশের মানুষ বিশ্বাস করে, জাতীয় পার্টিকে দায়িত্ব দিলে দেশ ও জনগনের ভাগ্য উন্নয়নে জাতীয় পার্টি সফল হবে।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তর জাতীয় পার্টির সভাপতি এস.এম. ফয়সল চিশতী, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সেন্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া। উপস্থিত ছিলেন- উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য আমানত হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, শফিকুল ইসলাম শফিক, আহসান আদেলুর রহমান এমপি, মোস্তফা আল মাহমুদ, সুলতান আহমেদ সেলিম, যুগ্ম মহাসচিব ফকরুল আহসান শাহজাদা, সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী মোঃ নাসির উদ্দিন সরকার, সৈয়দ মঞ্জুরুল হোসেন মঞ্জু, হুমায়ুন খান, আনোয়ার হোসেন তোতা, আনিস উর রহমান খোকন, কাজী আবুল খায়ের, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য- সুলতান মাহমুদ, জাকির হোসেন মৃধা, মাহমুদ আলম, সমরেশ মন্ডল মানিক, নজরুল ইসলাম সরদার, আব্দুস সাত্তার, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, আশিকুল আমিন মাসুম, মোহাম্মদ আলী, মোঃ নয়ন, আলাউদ্দিন আলাল, বাবুল আহমেদ, বুরহান কবির, আলাউদ্দিন, রফিকুল ইসলাম। রামপুরা, গুলশান, উত্তরাপূর্ব, খিলক্ষেত, বিমানবন্দর, উত্তরখান, দক্ষিণখান, তুরাগ, ভাটারা থানার নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue