বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯, ৮ কার্তিক ১৪২৬

বাংলাদেশকে কঠিন লক্ষ্য দিল আফগানরা

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার ০৮:১৭ পিএম

বাংলাদেশকে কঠিন লক্ষ্য দিল আফগানরা

ঢাকা: শুরু থেকে শেষ অবধি দারুন বোলিং করে গেলেন সাইফউদ্দিন। তার সঙ্গে যোগ দিলেন সাকিব। ৪০ রানেই নেই আফগানদের ৪ উইকেট। এরপরও আফগানিস্তানকে অল্প রানে বেঁধে রাখা গেল না মোহাম্মদ নবীর বিধ্বংসি ব্যাটিংয়ের কারণে। তার ৮৪ রান আফগানদের নিয়ে গেছে ১৬৪ রানে। বাংলাদেশকে জিততে হলে করতে হবে ১৬৫। 

আজ আফগানিস্তান ম্যাচটা বাংলাদেশের জন্য বিরাট চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জে টসে হেরে যায় বাংলাদেশ। রশিদ খান টস জিতে ব্যাটিং বেছে নিয়েছেন। ইনিংস শুরু করতে সাকিব বল তুলে দেন সাইফউদ্দিনের হাতে। প্রথম বলেই তিনি ওপেনার রাহমানুল্লাহ গুরবাজকে বোল্ড করে ফেরালেন। সাইফউদ্দিনের আউটসুইং করা বলটি বুঝতেই পারলেন না গুরবাজ। এরপর দ্বিতীয় ওভারে সাকিব আল হাসানকে তুলে মারতে গিয়ে উইকেট দিয়েছেন আরেক ওপেনার হজরউল্লাহ জাজাই। সাকিবের ওই ওভারের প্রথম বলে মুশফিকুর রহিম স্টাম্পিং করার সুযোগ হাতছাড়া না করলে বিপদ আরও বাড়ত আফগানিস্তানের।

সাইফউদ্দিনের করা তৃতীয় ওভারের পঞ্চম বলে দুর্দান্ত এক ছক্কা মেরেছিলেন তিনে নামা নাজিব তারাকাই। পরের বলে আবারও ছক্কা মারতে গিয়ে ডিপ উইকেটে সাব্বির রহমানের তালুবন্দী হন তিনি। ষষ্ট ওভারে নজিবুল্লাহ জাদরানকে মিড অফে ক্যাচে পরিণত করেন সাকিব। ৪০ রানে ৪ উইকেট পড়ার আফগানদের টেনে নিয়ে যান দুই অভিজ্ঞ আসগর আফগান ও মোহাম্মদ নবী। পঞ্চম উইকেটে তারা যোগ করেন ৭৯ রান। ১১৯ রানে আসগরকে (৩৭ বলে ৪০) আউট করে এই জুটি ভাঙেন সাইফউদ্দিন। তবে যা করার সব একাই করে দিয়ে গেলেন নবী। সৌম্যর নিজের দ্বিতীয় ওভারে রান দিয়ে গেলেন উদারহস্তে। শেষ অবধি তিনি ৫৪ বলে ৮৪ রানে অপরাজিত ছিলেন। চারের চেয়ে ছক্কাই বেশি মেরেছেন নবী। তিন চারের বিপরীতে তার ব্যাট থেকে এসেছে সাতটি ছক্কা। ২০ ওভারে আফগানিস্তানের রান ৬ উইকেটে ১৬৪।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে সাম্প্রতিক রেকর্ড সুখকর নয়। অতীত রেকর্ড আরও খারাপ। গত বছর ভারতের দেরাদুনে আফগানদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছিল বাংলাদেশ। সেই সিরিজে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দিয়েছিল রশিদ খানরা।

বাংলাদেশ দল: সৌম্য সরকার, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন, আফিফ হোসেন, সাইফউদ্দিন, তাইজুল ইসলাম ও মোস্তাফিজুর রহমান।

সোনলীনিউজ/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue