রবিবার, ১৯ মে, ২০১৯, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

বাধা পেরিয়ে সেন্সর হয়েছে শাকিব-ববির ‘নোলক’

বিনোদন প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৩ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার ০৫:৪৫ পিএম

বাধা পেরিয়ে সেন্সর হয়েছে শাকিব-ববির ‘নোলক’

শাকিব খান-ববি

ঢাকা:  সকল বাধা পেরিয়ে সেন্সর হয়েছে  সুপারস্টার শাকিব কান ও ববি অভিনীত আলোচিত সিনেমা ‘নোলক’। ২০১৭ সালে শুরু হয় ‘নোলক’ সিনেমার শুটিং। নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই সিনেমাটি নিয়ে শুরু হয় জটিলতা। গত এক বছর ধরে ‘নোলক’ সিনেমার পরিচালক পরিবর্তন নিয়ে জটিলতা চলছে। কোনোভাবেই এর সমাধান হচ্ছে না। চলচ্চিত্রের সংগঠনগুলো দফায় দফায় বৈঠকে বসেও এর সমাধান দিতে পারেনি। কে হবেন ‘নোলক’ সিনেমার পরিচালক? এর কোনো সমাধান না হওয়ার আগেই প্রযোজক সাকিব সনেটের নামে সিনেমাটি সেন্সর বোর্ডে জমা দেয়া হয়।

এদিকে পরিচালক রাশেদ রাহা দাবি করছেন ‘নোলক’ সিনেমার পরিচালক তিনি। এ দাবি জানিয়ে বাংলাদেশ সেন্সর বোর্ডে একটি চিঠিও পাঠিয়েছেন। অন্যদিকে সেন্সর বোর্ড সিনেমাটি দেখে কিছু অংশের সংশোধন করতে বলেছে। সংশোধন সাপেক্ষে সিনেমাটির ছাড়পত্র দেওয়া হবে বলে সেন্সর বোর্ড সূত্রে জানা যায়।

এ প্রসঙ্গে পরিচালক রাশেদ রাহা বলেন, ‘আমি আপনার কাছে মাত্রই শুনলাম সিনেমাটি সেন্সর বোর্ডে প্রদর্শিত হয়েছে। আমি চেষ্টা করছি, সিনেমাটির সঠিক পরিচালকের নাম নিতে। এজন্য পরিচালক সমিতি, প্রযোজক সমিতিতে অভিযোগ করেছি। কিন্তু তাদের সিদ্ধান্তও মানেননি প্রযোজক। এছাড়া শাকিব ভাইও শিল্পী হিসেবে যথেষ্ট সহযোগিতা করেছেন। কিছু লোকের স্বার্থ জড়িত থাকায় আমি সঠিক বিচার পাইনি। আর সিনেমাটি এখনো অসম্পূর্ণ যা দেখে দর্শক পরিচালককে মন্দ বলবেন। এ কথা বলার কারণ সিনেমাটির পরিচালকের নামের সঙ্গে আমার নামটাও অলিখিতভাবে জড়িয়ে আছে।’

আইনের আশ্রয় নিবেন কি না? এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমি আসলে মামলা করতে ইন্ডাস্ট্রিতে আসিনি, কাজ করতে এসেছি। তারপরও বিষয়টা ভেবে দেখবো। মামলা করবো কিনা তা সিদ্ধান্ত নিয়ে জানাবো।’ 

অন্যদিকে সাকিব সনেট বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ! সিনেমাটির সেন্সর হয়ে গেছে। এর কিছু সংশোধনী দিয়েছে। বিএফডিসি থেকে আমার নামে পরিচালক হিসেবে অনাপত্তি পত্র পেয়েছি। আমি যাকে নিয়ে কাজ শুরু করেছিলাম সে সকল জায়গায় বাধা দিয়েছে। তাকে কেউ কেউ সহায়তা করেছে। সকল বাধা পেরিয়ে সিনেমাটির সেন্সর হয়েছে।’

‘নোলক’ সিনেমার মাধ্যমে প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন। আবার হুট করেই সিনেমাটির পরিচালক হয়ে গেলেন। বিষয়টি কীভাবে দেখছেন? জবাবে সাকিব সনেট বলেন, ‘আমি হুট করেই পরিচালক হইনি। গত বছর রাশেদ রাহার কাছ থেকে লিখিত নিয়েছিলাম নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সিনেমাটির কাজ শেষ করে দেওয়ার। কিন্তু তিনি তা করতে পারেননি। এরপর সিনেমাটির কাজ আমি শুরু করি।’  

২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বর ভারতের হায়দরাবাদে ‘নোলক’ সিনেমার শুটিং শুরু হয়। এতে অভিনয় করেছেন শাকিব খান, ববি, মৌসুমী, ওমর সানী, তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, রেবেকা, ভারতের রজতাভ দত্ত, সুপ্রিয় দত্ত, অমিতাভ ভট্টাচার্য প্রমুখ।

দুই বছর আগে জমকালো আয়োজনে ঢাকার একটি হোটেল সিনেমাটির মহরত অনুষ্ঠিত হয়। এরপর টানা ২৮ দিন ভারতের হায়দরাবাদে ‘নোলক’ সিনেমার শুটিং করেন পরিচালক রাশেদ রাহা। শুটিং শেষে ইউনিট নিয়ে দেশে ফেরার পর পরিচালকের সঙ্গে দ্বন্দ্ব শুরু হয় প্রযোজকের। তারই জেরে পরের লট থেকে প্রযোজক সাকিব ইরতেজা পরিচালক রাশেদ রাহাকে ছাড়াই শুটিং শুরু করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে পালটাপালটি অভিযোগে অনেক সময় পার হয়ে যায়।

শুরুতে পরিচালক ও প্রযোজক সমিতিতে বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ করেন পরিচালক রাশেদ রাহা। অভিযোগের পর চলচ্চিত্রের দুই সমিতি একত্র হয়ে পরিচালক ও প্রযোজককে ডেকে পাঠান। মৌখিকভাবে পরিচালককে দিয়ে সিনেমার কাজ শেষ করার সিদ্ধান্ত হলেও তা মানেননি প্রযোজক। তিনি সাকিব সনেট অ্যান্ড টিমের নামে সিনেমার কাজ শেষ করার উদ্যোগ নেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে রাশেদ রাহা তার সিনেমার পরিচালকের মালিকানা ফিরে পেতে ঢাকার তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় একটি জিডি করেন।


সোনালীনিউজ/বিএইচ