বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬

বিএনপিতে যোগ দেয়ার প্রস্তাব, যা বললেন মান্না

নিউজ ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৯ মে ২০১৯, রবিবার ০১:২৯ পিএম

বিএনপিতে যোগ দেয়ার প্রস্তাব, যা বললেন মান্না

ঢাকা: শপথ না নেওয়ায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বগুড়া-৬ শূন্য হয়ে যাওয়া আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে বিএনপি। ওই শূন্য আসনের নির্বাচনে অংশ নিতে হলে আগে মাহমুদুর রহমান মান্নাকে বিএনপিতে যোগ দিতে হবে বলে এমনটাই প্রস্তাব দেয়া হয়েছে দলটির পক্ষ থেকে। কিন্তু দলটির এমন প্রস্তাবে রাজি হননি মাহমুদুর রহমান। এদিকে সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থীও এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

একটি সূত্রে জানা গেছে, বগুড়ার আসনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে মাহমুদুর রহমান মান্না ও জি এম সিরাজের নাম শোনা যাচ্ছে। এর মধ্যে মান্না বিএনপিতে যোগ দিয়ে প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী নন। তবে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের নিশ্চয়তা পেলে এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়ন সাপেক্ষে নির্বাচনে প্রার্থী হতে তাঁর আপত্তি নেই। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে মান্না বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে হেরে যান।

এ বিষয়ে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, সপ্তাহখানেক আগে মির্জা ফখরুল ইসলাম জানতে চেয়েছিলেন বগুড়া-৬ আসনে তিনি নির্বাচন করবেন কি করবেন না। তবে যদি করতে হয় তাহলে বিএনপির হয়ে করতে হবে। তখন আমি জানতে চাই, আমাদের হয়ে মানে কী, বিএনপিতে যোগ দিয়ে? জবাবে ফখরুল সহাস্যে বলেন, এর মানে তো তা–ই হয়।’

তবে এ বিষয়ে আরও জানা গেছে, মান্না বিএনপির মহাসচিবকে বলেছেন ঐক্যফ্রন্ট থেকে প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব পেলে তিনি বাকি শরিক দল জেএসডি, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানিয়েছেন। এ আসনটিতে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নির্বাচন করে একাধিকবার জয়ী হয়েছেন। তাই নির্বাচনে কে প্রার্থী হবেন, তা নির্ভর করছে লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সিদ্ধান্তের ওপর।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, তাদের (বিএনপি) প্রস্তাবে আমি অবাক হয়েছি। বিষয়টি নিয়ে আমি আমার দলেও আলোচনা করিনি।

আর জি এম সিরাজ নিজে থেকে নির্বাচন করতে আগ্রহী কি না, তা পরিষ্কার নয়। তবে তিনি গতকাল বলেন, ‘বগুড়ার নেতা-কর্মী ও সাধারণ ভোটাররা যদি আমাকে প্রার্থী হিসেবে চান, তাদের প্রতি আমি নিশ্চয়ই সম্মান দেখাব।’

এদিকে সংরক্ষিত আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, সহ–আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রুমীন ফারহানার নাম আলোচনায় আছে। তবে সংসদীয় দলের নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য জ্যেষ্ঠ নেতাদের অনেকে সেলিমা রহমানের কথা ভাবছেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত ৩০ এপ্রিল বগুড়া-৬ আসনটি শূন্য ঘোষণা করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এরপর ৮ মে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৪ জুন এই আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সূত্র-বিডি২৪লাইভ।


সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue