শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯, ৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

বোরো সংগ্রহে লক্ষ্য অর্জন করতে চায় সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৭ আগস্ট ২০১৯, মঙ্গলবার ০৯:৩৮ পিএম

বোরো সংগ্রহে লক্ষ্য অর্জন করতে চায় সরকার

ঢাকা : সরকার এবার যেকোনোভাবে বোরো ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে চায়। এজন্য মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের বারবার তাগিদপত্র দিচ্ছে খাদ্য অধিদপ্তর।

যদিও অতীতের দিকে তাকলে দেখা যায়,  কোনো বছরই কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে পারে না সরকার। ধানের ন্যায্যমূল্য থেকে কৃষক বঞ্চিত হওয়ার প্রেক্ষাপটে এবার পরিমাণ বাড়িয়ে বোরো ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে তা অর্জনে জোর দিয়েছে সরকার।

খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটি দুই দফা সভা করে চলতি বোরো মৌসুমে অভ্যন্তরীণ বাজার থেকে ১০ লাখ টন সেদ্ধ চাল, দেড় লাখ টন আতপ চাল এবং চার লাখ টন ধান কেনার সিদ্ধান্ত নেয়। সংগ্রহ মূল্য নির্ধারণ করা হয় প্রতি কেজি সেদ্ধ চাল ৩৬, আতপ চাল ৩৫ ও ধান ২৬ টাকা দরে কেনা হবে। গত ২৫ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে এ ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান চলবে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত।

ধান সংগ্রহ কার্যক্রম জোরদার করতে কয়েক দফা তাগিদ দিয়ে খাদ্য অধিদপ্তর থেকে মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। সর্বশেষ গত ২১ আগস্ট রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, খুলনা, চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশালের আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কাছে তাগিদপত্র পাঠান খাদ্য অধিদপ্তর মহাপরিচালক মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম।

এতে বলা হয়েছে, চলতি অভ্যন্তরীণ বোরো সংগ্রহ-২০১৯ এর মেয়াদ আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত নির্ধারিত রয়েছে। চলতি অর্থবছরে বোরো ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে চার লাখ টন। গত ১৯ আগস্ট পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে সারা দেশে দুই লাখ ৯৯ হাজার ৯৯১ টন ধান সংগৃহীত হয়েছে।

রাজশাহী বিভাগের ৭০ হাজার ৯৭১ টনের বিপরীতে ৫৩ হাজার ৯৫৮ টন, রংপুরে ৬২ হাজার ৪৯১ টনের বিপরীতে ৪৮ হাজার ৫০৩ টন, ঢাকা বিভাগে এক লাখ ১৭ হাজার ৬৬৪ টনের বিপরীতে ৮৫ হাজার ৩৯০ টন ধান সংগৃহীত হয়েছে।

এ ছাড়া খুলনায় ৫১ হাজার ২৫৮ টনের স্থলে ৪০ হাজার ৫৫১ টন, চট্টগ্রামে ৪৭ হাজার ৪২৪ টনের ক্ষেত্রে ৩৯ হাজার ২৮৯ টন, সিলেটে ৩৬ হাজার ৮০৭ টনের স্থলে ২২ হাজার ৯০২ টন, বরিশালে ১৩ হাজার ৩৮৫ টনের স্থলে ৯ হাজার ৩৮৯ টন বোরো ধান সংগ্রহ করা হয়েছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে। চিঠিতে আরো বলা হয়, ধান সংগ্রহের গতি বাড়াতেও চিঠি পাঠানো হয়েছিল। এরপর দুই লাখ ৯৯ হাজার ৯৯১ টন ধান সংগৃহীত হয়েছে।

লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে সারা দেশে এখনো এক লাখ ৯ টন ধান সংগ্রহের অপেক্ষায় রয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে সংগ্রহের অবশিষ্ট এক লাখ ৯ টন ধান সংগ্রহের নির্ধারিত মেয়াদ ৩১ আগস্টের মধ্যে সংগ্রহ নিশ্চিত করতে হবে।

যদি নিজ নিজ বিভাগের অন্তর্ভুক্ত জেলার উপজেলা বা এলএসডিতে (খাদ্যগুদাম) শতভাগ ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে অর্জনের সম্ভাবনা না থাকে, তাহলে ওই পরিমাণ ধান অভ্যন্তরীণ খাদ্যশস্য সংগ্রহ নীতিমালা ২০১৭ এর ৮ (খ) অনুচ্ছেদের আলোকে সংশ্লিষ্ট জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকদের আন্তঃউপজেলা সমন্বয়ের মাধ্যমে তা নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয় চিঠিতে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue