মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

ভুটান থেকে বাংলাদেশে পাথরবাহী জাহাজের যাত্রা শুরু

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৮ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার ০৫:২৩ পিএম

ভুটান থেকে বাংলাদেশে পাথরবাহী জাহাজের যাত্রা শুরু

নারায়ণগঞ্জ : ভুটান থেকে প্রথমবারের মতো নদী পথে ভারতীয় নৌ-পথ ব্যবহার করে পণ্যবাহী জাহাজ এমভি এএআই ভারত হয়ে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পৌছেছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সোনারগাঁয়ের মেঘনাঘাট এলাকায় বসুন্ধরা গ্রুপের জয়া জেটিতে এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ভুটান থেকে বাংলাদেশে আসা পাথরবাহী জাহাজের প্রথম চালানটি গ্রহণ করা হয়।

ভারতীয় হাই কমিশনার শ্রীমতী রীভা গাঙ্গুলি দাশ জানান, ভারত ও বাংলাদেশের নৌ-পথ ব্যবহার করার মাধ্যমে আমাদের দুই দেশের সম্পর্কের আরো উন্নতি হবে। এই উদ্যোগের মাধ্যমে ভারত, ভুটান এবং বাংলাদেশ উপকৃত হবে ও প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে। এই রুটের মধ্য দিয়ে পন্য পরিবহনের ফলে ৮ থেকে ১০ দিন সময় সাশ্রয় হবে। পরিবহন খরচ কমবে ৩০ শতাংশ। এটি ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যের জন্য একটি বিকল্প পথ উন্মুক্ত করবে। যার মাধ্যমে দেশের অন্যান্য অংশ থেকে এই স্থানে পন্য পৌছানো সহজ ও সাশ্রয়ী হবে।

বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান বলেন, ভারতের নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী শ্রী মনসুখ মন্তব্য ১২ জুলাই ডিজিটাল ভাবে ভারতের অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষের এমভি এএআই পণ্যবাহী জাহাজটি আসামের ধুবরি থেকে যাত্রার সূচনা করেন। জাহাজটি এই প্রমবারের মত ভারতীয় নৌপথ ও ভারতকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করে দুই দেশের মধ্যে পণ্য পরিবহন করতে ধুবরি নদীবন্দর হয়ে ব্রহ্মপুত্র নদীর উপর দিয়ে নারায়ণগঞ্জে পৌছায়। এর আগে বাংলাদেশে আসামের ধুবরি থেকে ১৬০ কিলোমিটার দূরে ভুটানের ফুয়েন্টশোলিং থেকে স্থলপথে ট্রাকে করে পাথর আনা হতো।

অনুষ্ঠানে সাফওয়ান সোবহানের সভাপতিত্বে অভ্যন্তরীণ নৌ কর্তৃপক্ষের এমভি এএআই পণ্যবাহী জাহাজের ক্যাপ্টেনকে প্রথমবারের মতো নদী পথে ভারতীয় নৌপথ ব্যবহার করে পণ্যবাহী জাহাজ সুষ্ঠমত বাংলাদেশে নিয়ে আসায় ফুল দিয়ে শুভেছা জানানো হয়।

এসময় ইন্দো-বাংলা প্রটোকল রুট ব্যবহার করে আসা প্রথম চালানটি গ্রহণ করেন ভারতীয় হাই কমিশনার শ্রীমতি রীভা গাঙ্গুলি দাশ, ভুটানের রাষ্ট্রদূত সোনম টি, রাগবি এবং বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান, বিআইডব্লিটিএর চেয়ারম্যান কমোডর এম মাহবুব উল ইসলাম।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue