বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬

‘ভুয়া সার্টিফিকেট’ আনতে গিয়ে ধরা খেলেন সেই সাধনা

জামালপুর প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ৩১ আগস্ট ২০১৯, শনিবার ০৬:০১ পিএম

‘ভুয়া সার্টিফিকেট’ আনতে গিয়ে ধরা খেলেন সেই সাধনা

জামালপুর : সাম্প্রতি দেশজুড়ে শুধু একটা আলোচনা চলছে জামালপুরের প্রাক্তন জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরের আপত্তিকর ভিডিও। নারী অফিস সহকর্মী সানজিদা ইয়াসমিন সাধনার সঙ্গে এই ঘটনা ঘটে।

আর এ ঘটনায় আহমেদ কবীরকে ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) করা হয়েছে। তার জায়গায় নতুন ডিসি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মো. এনামুল হক। গত রোববার এ সংক্রান্ত পৃথক দুটি আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

এদিকে, চিকিৎসকের কাছ থেকে মেডিকেল সনদ নিতে ব্যর্থ হয়েছেন সাধনা। তলপেটের ব্যথার কথা বলে সনদ নিতে ব্যর্থ হয়ে তিনি চিকিৎসকের ওপর ভীষণ ক্ষিপ্ত হয়েছেন। নিয়ম অনুযায়ী চিকিৎসককে দেওয়া ফি অফেরতযোগ্য হলেও রাগে-ক্ষোভে ৫০০ টাকা চেয়ে বসলেন সাধনা। সবশেষে চিকিৎসককে দেয়া ৫শ’ টাকা ফিস ফেরত নিয়েছেন তিনি।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের ওই চিকিৎসক গণমাধ্যমকে জানান, গত বুধবার (২৮ আগস্ট) তলপেটে ব্যথার সমস্যা নিয়ে তার কাছে যান সাধনা। এই অসুস্থতার জন্য তিনি ১৫ দিন তাকে রেস্টে থাকতে হবে এই মর্মে একটি মেডিকেল সার্টিফিকেট দাবি করেন।

জানা গেছে, চিকিৎসক এ সময় তাকে প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেন, তার পেটে ব্যথা হওয়ার কোনো লক্ষণ নেই। যে কারণে তিনি সাধনাকে ওই সার্টিফিকেট দেননি। এ জন্য তার ওপর বেশ ক্ষিপ্ত হন সাধনা। পরে সার্টিফিকেট না পেয়ে চিকিৎসককে দেয়া ভিজিটের ৫শ’ টাকা ফেরত নেন তিনি।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি জামালপুরের ডিসির একটি আপত্তিকর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। ভিডিওটিতে ডিসি আহমেদ কবীরের সঙ্গে তার অফিসের এক নারীকর্মীকে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায়।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue