রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬

মাদ্রাসা মসজিদ চত্বরে মন্দির তৈরির ঘোষণা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার ০৯:৫১ এএম

মাদ্রাসা মসজিদ চত্বরে মন্দির তৈরির ঘোষণা!

ঢাকা : ভারতের উত্তরপ্রদেশের ঐতিহাসিক আলিগড়ে মাদ্রাসা চত্বরে মন্দির তৈরির ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রাক্তন উপরাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারির স্ত্রী সালমা আনসারি।

সোমবার (১৫ জুলাই) তিনি এই ঘোষণা দেন।

ভারতীয় গণমাধ্যম জিনিউজের খবরে বলা হয়েছে, আলিগড়ে চাচা নেহরু স্কুল নামে একটি স্কুল ও পাশাপাশি একটি মাদ্রাসা চালান সালমা আনসারি। ওই মাদ্রাসায় হিন্দু ও মুসলমানসহ হাজার হাজার ছাত্র রয়েছে।

মন্দির ও মসজিদ তৈরির ঘোষণা প্রসঙ্গে সালমা আনসারি বলেন, ‌‍‍‘এ রকম একটি ব্যবস্থা হলে তা নজির হয়ে থাকবে গোটা দেশে। গোটা দেশে ভ্রাতৃত্বের একটি বার্তা যাবে। এতে ছাত্রদের নামাজ পড়তে বাইরে যেতে হবে না। তারা নিরাপদে থাকবে।’

সালমা আরও বলেন, ‌‘মাদ্রাসা কিংবা মসজিদ সবই আমার কাছে একই। আমরা চাই মন্দির ও মসজিদ একটি চত্বরে থাক। এতে সবার সুবিধে। কোনো ছাত্র যদি রাম বা শিবের মূর্তি রাখতে চায় তাহলে আপত্তির কিছু নেই। স্কুলে বাচ্চারা প্রায়ই আবদার করে ক্লাসে রাম বা শিবের ছবি টাঙানো হোক। এবার থেকে তা রাখা যাবে।’

এদিকে এ রকম একটি ঘোষণার তীব্র সমালোচনা করেছে এলাকার নেতারা। অর্জুন ভোলা নামে এক নেতা সংবাদমাধ্যমে বলেন, এটা একেবারেই তোষণের রাজনীতি। ওরা বলছে, মসজিদের পাশাপাশি একটি মন্দিরও তৈরি করা হবে মাদ্রাসা চত্বরে। ওরা প্রথমে মসজিদ বানাবে। কিন্তু মন্দির বানাবে না। এসব মিথ্যে আশ্বাস দেওয়া হচ্ছে হিন্দুদের। আগেও এ রকম হয়েছে। বিশেষ এক উদ্দেশ্যে এ ঘোষণা দেওয়া হয়েছে বলেও জানান ওই নেতা।


গত কয়েক সপ্তাহে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে একাধিক ধর্মীয় অসহিষ্ণুতার ঘটনা সামনে এসেছে। কোথাও ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দিতে বাধ্য করা হয়েছে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষকে। কোথাও আবার নিগ্রহের শিকার হয়েছেন দলিতরা, যা নিয়ে এ যাবৎ সরব হয়েছেন নোবেলজয়ী অমর্ত্য সেন-সহ একাধিক বিশিষ্ট মানুষ। তার মধ্যেই এমন ঘোষণা করলেন সালমা আনসারি। পিটিয়ে মারার অভিযোগ প্রমাণিত হলে, দোষীদের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হোক বলেও সাম্প্রতি দাবি তুলেছিলেন তিনি।

২০১৭ সালের অগস্টে উপরাষ্ট্রপতি পদ থেকে বিদায় নেন হামিদ আনসারি। বিদায়কালে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা নিয়ে নরেন্দ্র মোদী সরকারকে বিঁধেছিলেন তিনিও। বিজেপির আমলে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় অস্বস্তিতে রয়েছেন, নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে সেইসময় মন্তব্য করেন তিনি।তা নিয়ে অবশ্য বিজেপি নেতৃত্বের সমালোচনার মুখে পড়তে হয় তাঁকে।

সোনালীনিউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue