রবিবার, ০৯ আগস্ট, ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

মেকআপ করা ছাত্রীদের পরীক্ষার রেজাল্টও ভালো হয়!

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৬ জুলাই ২০২০, সোমবার ০২:০১ পিএম

মেকআপ করা ছাত্রীদের পরীক্ষার রেজাল্টও ভালো হয়!

ঢাকা : যারা লেখাপড়া নিয়ে ব্যস্ত তাদের কাছে মেকআপ করার সময় নেই। আবার পরীক্ষার সময় সাজগোজ করলে খেতে হয় মায়ের বকাও, তবে এবার জানা গেলো অবাক করা তথ্য!

মেকআপ করলেই নাকি পরীক্ষার ফল ভালো হবে। আমেরিকার হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গবেষকরা এ দাবি করেছেন। তারা এটিকে ‘লিপস্টিক এফেক্ট’ নামে চিহ্নিত করেছেন।

গবেষকদের মতে মেকআপ এর প্রভাবে আত্মবিশ্বাস, আচরণ ও ব্যক্তিত্ব উন্নত হয়। মেকআপ করলে সংশ্লিষ্ট নারীর মনের ওপর ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

গবেষণায় পরীক্ষার জন্য আন্ডার গ্র্যাজুয়েট কোর্সের তিনটি দলে ভাগ করা হয়। তারপর তাদের কাছ থেকে সাধারণ মনোবিজ্ঞানের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর জানতে চেয়েছিলেন গবেষকরা।

এ পরীক্ষার আগে একটি দলের নারীদের মেকআপ করতে বলা হয়, একটি দলের ছাত্রীদের ভালো গান শোনানো হয় এবং তৃতীয় দলকে বলা হয় মানুষের মুখ আঁকতে। যে দলের সদস্যরা গান শুনেছিলেন তাদের পরীক্ষার ফল ভালো হয়। তবে সেরা ফল করেন মেকআপ করা ছাত্রীরা।

গবেষকরা জানিয়েছেন আসলে নারীরা মেকআপ করার পর নিজেদের আরো আকর্ষণীয় মনে করেন। এর ফলে তাদের আত্মবিশ্বাসও বাড়ে। একই সঙ্গে তাদের পড়াশোনাও ভালো হয়।

তারা আরো জানান, মেকআপ করলেই নাকি পরীক্ষার ফল ভালো হবে। আমেরিকার হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গবেষকরা এ দাবি করেছেন। তারা এটিকে ‘লিপস্টিক এফেক্ট’ নামে চিহ্নিত করেছেন।

গবেষকদের মতে মেকআপ এর প্রভাবে আত্মবিশ্বাস, আচরণ ও ব্যক্তিত্ব উন্নত হয়। মেকআপ করলে সংশ্লিষ্ট নারীর মনের ওপর ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

গবেষণায় পরীক্ষার জন্য আন্ডার গ্র্যাজুয়েট কোর্সের তিনটি দলে ভাগ করে তাদের কাছ থেকে সাধারণ মনোবিজ্ঞানের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর জানতে চেয়েছিলেন গবেষকরা। এ পরীক্ষার আগে একটি দলের মেয়েদের মেকআপ করতে বলা হয়, একটি দলের ছাত্রীদের ভালো গান শোনানো হয় এবং তৃতীয় দলকে বলা হয় মানুষের মুখ আঁকতে। যে দলের সদস্যরা গান শুনেছিলেন তাদের পরীক্ষার ফল ভালো হয়। তবে সেরা ফল করেন মেকআপ করা ছাত্রীরা।

গবেষকরা জানিয়েছেন আসলে মেয়েরা মেকআপ করার পর নিজেদের আরো আকর্ষণীয় মনে করেন। এর ফলে তাদের আত্মবিশ্বাসও বাড়ে। একই সঙ্গে তাদের পড়াশোনাও ভালো হয়।

তারা মনে করেন গবেষণায় পরীক্ষার জন্য আন্ডার গ্র্যাজুয়েট কোর্সের তিনটি দলে ভাগ করে তাদের কাছ থেকে সাধারণ মনোবিজ্ঞানের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর জানতে চেয়েছিলেন গবেষকরা। এ পরীক্ষার আগে একটি দলের মেয়েদের মেকআপ করতে বলা হয়, একটি দলের ছাত্রীদের ভালো গান শোনানো হয় এবং তৃতীয় দলকে বলা হয় মানুষের মুখ আঁকতে। যে দলের সদস্যরা গান শুনেছিলেন তাদের পরীক্ষার ফল ভালো হয়। তবে সেরা ফল করেন মেকআপ করা ছাত্রীরা।

গবেষকরা জানিয়েছেন আসলে মেয়েরা মেকআপ করার পর নিজেদের আরো আকর্ষণীয় মনে করেন। এর ফলে তাদের আত্মবিশ্বাসও বাড়ে। একইসঙ্গে তাদের পড়াশোনাও ভালো হয়।

সোনালীনিউজ/এএস