সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

মোহামেডানকে ধ্বংস করেছেন লোকমান

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার ০৮:২৭ পিএম

মোহামেডানকে ধ্বংস করেছেন লোকমান

ঢাকা: মোহামেডান ক্লাবের কক্ষ ভাড়া দিয়ে ৪১ কোটি টাকা আয় করেছেন ক্লাবটির ডিরেক্টর ইনচার্জ লোকমান হোসেন ভুঁইয়া। তাঁর বিরুদ্ধে শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সংবাদ সম্মেলন করেছেন ক্লাবের সাবেক ফুটবলার ও কর্মকর্তারা। মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের কক্ষ ক্যাসিনোর জন্য ভাড়া দেওয়ায় গত বুধবার গ্রেপ্তার করা হয় লোকমানকে। তিনি একই সঙ্গে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালকও। র্যািব জানিয়েছে, ক্যাসিনো থেকে লোকমান গত দুই বছরে ৪১ কোটি টাকা কামিয়েছেন। যার পুরোটাই জমা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার এএনজেড ও কমনওয়েলথ ব্যাংকে।

ক্লাবের ডিরেক্টর ইন চার্জের এমন অপকর্মের বিরুদ্ধে শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মোহামেডানের সাবেক ফুটবলার ও কর্মকর্তারা। সংবাদ সম্মেলনে ক্লাব থেকে লোকমানের ৪১ কোটি টাকা দেশে ফিরিয়ে আনার দাবি তুলেছেন মোহামেডানের সাবেক অধিনায়ক ও ক্লাবের স্থায়ী সদস্য বাদল রায়। তিনি বলেছেন, ‘মোহামেডান ক্লাবকে লোকমান হোসেন ভূঁইয়া ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছেন। সাফল্য তো নেই-ই, ক্যাসিনো বসিয়ে ক্লাবের ঐতিহ্য ও ভাবমূর্তি নষ্ট করেছেন। ক্যাসিনো থেকে আয় করা ৪১ কোটি টাকা লোকমান হোসেন বিদেশে পাঠিয়েছেন। কিন্তু এখনও তাঁর বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিংয়ের কোনও মামলা হয়নি। এই বিশাল অঙ্কের টাকা দেশে ফিরিয়ে আনার দাবি জানাচ্ছি আমরা। ক্লাবে আর তাঁর কোনও জায়গা নেই। শুধু তাই নয় বিসিবি (বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড) থেকেও লোকমানের বহিষ্কারের দাবি জানাচ্ছি আমরা।'

বাদল আরও বলেন, ‘আমরা সবাই এই ক্লাবে বড় হয়েছি। ক্লাবের ক্রান্তিলগ্নে আজ এখানে জড়ো হয়েছি। মোহামেডান ক্লাবের এমন অবস্থা দেখে যারা ক্লাবটিকে ভালোবাসে তারা নীরবে নিভৃতে কাঁদছে। আমরা এসব দেখে ঘরে বসে থাকতে পারিনি। এটা কোনো ক্লাব না এটা একটা প্রতিষ্ঠান, একটা ইতিহাস। ক্লাবটিকে যেভাবেই হোক বাঁচাতে হবে।’ সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক ফুটবলার ইমতিয়াজ সুলতান জনি, কায়সার হামিদ, রুম্মন বিন ওয়ালী সাব্বির, ইমতিয়াজ আহমেদ, ইলিয়াস হোসেন, ছাইদ হাসান কানন, আবদুল গাফফার, সাবেক অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক মোস্তাকুর রহমান, সাবেক পরিচালক ও হকি সম্পাদক সাজেদ এ আদেল, সদস্য ফজলুর রহমান বাবুল প্রমুখ।

সোনালীনিউজ/আরআইবি/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue