বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

যে অভিযোগে জেলে গেলেন বিএনপি নেতা এমপি হারুন

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার ০৪:১০ পিএম

যে অভিযোগে জেলে গেলেন বিএনপি নেতা এমপি হারুন

ঢাকা: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও সংসদ সদস্য হারুন অর রশিদ এমপিকে দণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। এমপিকে ৫ বছরের দণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি তাকে ৫০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

সোমবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এ রায় দেন।

জানা গেছে, শুল্কমুক্ত গাড়ি এনে তা বিক্রি করে আত্মসাতের ঘটনায় দুদকের দায়ের করা মামলায় তাকে এ সাজা দেয়া হয়েছে। এ মামলায় আরও দুজনকে সাজা দেয়া হয়েছে। তারা হলেন-ব্যবসায়ী এনায়েতুর রহমান ও গাড়ি ব্যবসায়ী ইশতিয়াক সাদেক।

দুদকের মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, সংসদ সদস্য থাকাবস্থায় শুল্ক মুক্ত গাড়ি এনে তা বিক্রির ঘটনায় হারুন অর রশিদসহ তিনজনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা হয় ২০০৭ সালের ১৭ মার্চ। মামলার বাদী হলেন পুলিশের উপপরিদর্শক ইউনুস আলী। মামলাটি তদন্ত করে হারুনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ওই বছরের ১৮ জুলাই আদালতে চার্জশিট দেন দুদকের সহকারী পরিচালক মোনায়েম হোসেন। আদালত অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে হারুনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ২০০৭ সালের ২০ আগস্ট বিচার শুরু করেন আদালত।

এ বিষয়ে দুদকের আদালত পরিদর্শক আশিকুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, দুর্নীতির এই মামলায় বিএনপির সংসদ সদস্য হারুন অর রশিদকে পাঁচ বছর কারাদণ্ড এবং ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আর ব্যবসায়ী এনায়েতুর রহমানকে দুই বছর এবং ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গাড়ি ব্যবসায়ী ইশতিয়াক সাদেককে তিন বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে এবং জরিমানা করা হয়েছে ৪০ লাখ টাকা। হারুন অর রশিদ ছাড়া বাকিরা পলাতক রয়েছেন।

বিষয়টি নিয়ে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতের হাজতখানার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মইনুল ইসলাম বলেন, রায় ঘোষণার পর দণ্ডিত আসামি হারুন অর রশিদকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়েছে।

আর এ সময় ব্যবসায়ী এনায়েতুর রহমানের আইনজীবী আমিনুল গণী টিটো গণমাধ্যমকে বলেন, সংসদ সদস্য থাকাবস্থায় শুল্কমুক্ত গাড়ি এনে তা বিক্রি করে টাকা আত্মসাতের মামলায় হারুন অর রশিদসহ তিনজনের বিরুদ্ধে এই মামলা হয় ২০০৭ সালে। দণ্ডবিধির ৪০৯ এবং কাস্টমস অ্যাক্ট এর ১৫৬ ধারায় হারুন অর রশিদ, ব্যবসায়ী এনায়েতুর রহমান এবং গাড়ি ব্যবসায়ী সাদেককে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

হারুন অর রশিদ চাপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির যে ৭ জন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন হারুন তাদের অন্যতম। তিনি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব পদে আছেন। জাতীয় সংসদে বিএনপির সংসদ সদস্যদের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন হারুন।

হারুন অর রশিদ চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের বর্তমান এমপি। তিনি কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব। বিগত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জের একটি আসন থেকে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচিত হন। হারুন অর রশীদ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সংসদে জোরালো বক্তব্য রেখে আসছিলেন।

গত ১ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়াকে দেখে এসে তার মুক্তির দাবি জানান। পরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গেও বৈঠক করেন এমপি হারুন। খালেদা জিয়ার জামিনে মুক্তির বিষয়ে সরকারকে নমনীয় হতে ওবায়দুল কাদেরকে অনুরোধ করেন তিনি। পরে এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। আজ তাকে দুদকের মামলায় কারাগারে পাঠানো হলো।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue