বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬

রেকর্ডের পথে মোদির বিজেপি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৩ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার ১১:৫১ এএম

রেকর্ডের পথে মোদির বিজেপি

ঢাকা: ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে সবার ধারনাকেও অতিক্রম করে যাচ্ছে মোদির বিজেপি। ৫৪২টি আসনের মধ্যে ৩২৭টি আসনেই এগিয়ে আছে ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। 

অপরদিকে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ এগিয়ে আছে ১০৮ টি এবং অন্যান্য বিরোধী দল এগিয়ে ১০৮ আসনে। ভারতে কোনো দলকে সরকার গঠন করতে হলে ২৭২টি আসনে জয়ী হতে হয়। বেসরকারি ফলাফলে ইতোমধ্যেই এই ম্যাজিক ফিগার পার করে ফেলেছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। 

এখন শুধু আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণার অপেক্ষা। সব কেন্দ্রের ভোট গণনা শেষে আজ ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

সারাদেশ জুড়ে প্রায় দেড় মাস ধরে সাত দফায় নির্বাচন শেষ হয়েছে। নির্বাচনের শেষের দিন থেকেই অবশ্য সামনে এসেছে বিভিন্ন সংস্থার বুথফেরত সমীক্ষার ফলাফল। ওই ফলাফলের হিসাবেও বাকি সবার চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে থাকতে দেখা গেছে শাসকদল এনডিএ জোটকেই। দেশজুড়ে ভাল ফল করতে চলেছে বিজেপি, এমনটাই অভিমত পাওয়া গেছে বেশির ভাগ বুথফেরত সমীক্ষাতে। প্রাথমিক ফলাফলেও সেটা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

তবে লজ্জাজনক পরাজয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস। উত্তর আমেঠি বরাবরই গান্ধী-নেহেরু পরিবারের আসন হিসেবেই পরিচিত। কয়েক দশক ধরে ভারতের রাজনীতিতে ওই আসনটি নিয়ন্ত্রণ করছেন এই পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু সেখানেই এবার পিছিয়ে পড়েছেন রাহুল গান্ধী। ৪৮ বছর বয়সী রাহুল গান্ধী এই এলাকা থেকে আগে তিনবার এমপি হয়েছেন।

এবার লড়ছেন চতুর্থ বারের মতো। তবে এ আসনে হারলেও তিনি পার্লামেন্টের বাইরে চলে যাচ্ছেন না। কারণ কেরালার ওয়েনাডেতে বেশ ভালোভাবেই এগিয়ে আছেন রাহুল।

গত ১১ এপ্রিল থেকে ১৯ মে- মোট সাতটি ধাপে লোকসভা নির্বাচনের ভোট হয়েছে। সারা দেশে মোট ভোটার ছিল প্রায় ৯০ কোটি। এক হাজার ৮শ ৪১টি রাজনৈতিক দলের আট হাজারেরও বেশি প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে নারী প্রার্থীর সংখ্যা ৭২০ এবং তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থী ছিল ৪ জন। ১৯৫১-৫২ সালে ভারতের প্রথম লোকসভা নির্বাচন সম্পন্ন হতে সময় লেগেছিল তিন মাস।

সোনালীনিউজ/এইচএন

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue