শনিবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

শিমুল হত্যা মামলায় মিরুর বিচার শুরু ৮ আগস্ট

রাজশাহী প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৬ আগস্ট ২০১৯, মঙ্গলবার ১১:২৬ এএম

শিমুল হত্যা মামলায় মিরুর বিচার শুরু  ৮ আগস্ট

মিরু লাল বৃত্তে

রাজশাহী : চাঞ্চল্যকর সিরাজগঞ্জে সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যা মামলায় শাহজাদপুর পৌরসভার বরখাস্তকৃত মেয়র হালিমুল হক মিরুর চার্জ গঠন ৮ আগস্ট।

রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে সোমবার (৫ আগস্ট) দুপুরে শুনানি শেষে বিচারক অনুপ কুমার সরকার এই দিন ধার্য করেন।  রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু বলেন, 'মামলাটি রাজশাহী দ্রুত বিচার আদালতে আসার পর আজ শুনানির দিন ধার্য করা হয়। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক অনুপ সরকার আসামি হালিমুল হক মিরুর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে উচ্চ আদালত থেকে জামিনে থাকা অন্য ৩৭ আসামিকে ১০ হাজার টাকা বন্ডের বিনিময়ে বদলি জামিন দেওয়া হয়।'

মামলাটি স্থানান্তরের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'আমার জানা মতে, গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে জারিকৃত এক প্রজ্ঞাপনে সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যা মামলা সিরাজগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে রহস্যজনক কারণে দীর্ঘ প্রায় সাত মাস পর গত ১৪ জুলাই প্রজ্ঞাপনটি সিরাজগঞ্জ দায়রা জজ আদালতে আদালতে পৌঁছে। পরে জুলাইয়ের শেষ দিকে মামলাটি রাজশাহী আদালতে স্থানান্তর করা হয়।'

মামলায় বাদী পক্ষে ছিলেন- রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু ছাড়াও অ্যাডভোকেট সুশান্ত সরকার, অ্যাডভোকেট রোস্তম আলী ও অ্যাডভোকেট মোমিনুল ইসলাম বাবু। আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন- সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আবদুল আলিম মিয়া জুয়েল, অ্যাডভোকেট একরামুল হক, আসলাম সরকার ও মোছাব্বিরুল সরকার।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি শাহজাদপুর সরকারি কলেজ শাখার ছাত্রলীগ সভাপতি বিজয় মাহমুদকে মারধর করে হাত-পা ভেঙে দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পৌরসভার মেয়র (বর্তমানে বরখাস্তকৃত) হালিমুল হক মিরুর সমর্থকদের সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

ওই সময় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে পৌরসভার মেয়র হালিমুল হক মিরুর শর্টগানের গুলিতে সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন। পরদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নিহত শিমুলের স্ত্রী নুরুন্নাহার খাতুন বাদী হয়ে মিরুকে প্রধান আসামি করে ১৮ জনের নাম উল্লেখসহ ২৫ জন অজ্ঞাত আসামির বিরুদ্ধে শাহজাদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ একই বছরের ২ মে পৌরসভার মেয়র হালিমুল হক মিরু ও তার ভাই মিন্টুসহ ৩৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। মামলায় হালিমুল হক মিরু কারাগারে থাকলেও অপর ৩৭ জন আসামি উচ্চ আদালত থেকে জামিন পান।

সোনালীনিউজ/এএস

 

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue