বুধবার, ০১ এপ্রিল, ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬

বাগেরহাট-৪ উপ-নির্বাচন

শেষ মুহূর্তে আ.লীগ প্রার্থীর প্রচারণা তুঙ্গে

মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৮ মার্চ ২০২০, বুধবার ০২:৩৭ পিএম

শেষ মুহূর্তে আ.লীগ প্রার্থীর প্রচারণা তুঙ্গে

মোরেলগঞ্জ : বাগেরহাট-৪ (মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা) আসনের উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে শেষ মুহুর্তে নৌকার পক্ষে প্রচার-প্রচারণা এখন তুঙ্গে। আওয়ামী লীগ মনোনীত জাতীয় সংসদ সদস্য প্রার্থী দলের কেন্দ্রীয় নেতা এড. মো. আমিরুল আলম মিলনের পক্ষে সৃষ্টি হয়েছে উচ্ছাসিত জনতার গণজোয়ার। 

জোড়ালো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলেও দলীয় নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা করে ভোট কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতির হার বাড়াতে তিনি মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। তার এ তৎপড়তার কারণেই গোটা এলাকায় তৈরী হয়েছে নির্বাচনী আমেজ। মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা দলবদ্ধ হয়ে গ্রামে-গ্রামে নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নমুলক কর্মকান্ডকে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরে নৌকার বিকল্প নেই বলে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। যতই নিবার্চন এগিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী মাঠ জমে উঠছে। নেতা-কর্মীদের মাঝে দেখা যাচ্ছে উৎসবের আমেজ।

শান্তিপূর্ণ সহ অবস্থানের বাসযোগ্য পরিবেশ গঠনে সন্ত্রাস, মাস্তান, চাঁদাবাজ, দখলবাজ ও মাদকবাজদের বিরুদ্ধে তার শক্ত অবস্থান ঘোষনায় সাধারণ ভোটারদের মাঝেও দেখা দিয়েছে ব্যাপক উচ্ছাস। সর্বত্রই বিরাজ করছে উৎসব মূখর পরিবেশ। নির্বাচনী এলাকার ২টি উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের পথে-ঘাটে, হাটে-বাজারে শোভা পাচ্ছে  এড. আমিরুল আলম মিলনের নৌকা প্রতীকের সাদা,কালো পোস্টার ও ব্যানার।

উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দৃশ্যত মোরেলগঞ্জ-শরণখোলার মানুষ দীর্ঘদিন পর যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছেন। তৃণমূলে দলের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের ভেতর স্বস্থির ভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। দীর্ঘদিনের ঝিমিয়ে পড়া রাজনীতি আবারও চাঙ্গা হয়েছে। উপরন্ত ক্ষমতাসীন দলে বহুধাবিভক্ত নেতৃত্ব ও জিম্মিদশায় হাবুডুবু খাওয়ার কারণে এ এলাকার রাজনীতি চলতো ভিন্ন আঙ্গিকে, ছিল একটা অস্বস্থিকর পরিবেশ। উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জনসাধাণ যেন হাফ ছেড়ে বেঁচেছেন। নতুন এক আমেজ তৈরী হয়েছে মোরেলগঞ্জ-শরণখোলার প্রতিটি এলাকায়।

এ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী এড. মো. আমিরুল আলম মিলনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় রয়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী সার্জন কুমার মিস্ত্রী। যদিও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর তেমন কোন প্রচার প্রচারণা গণসংযোগ নেই। মনোনয়ন দাখিল ও কিছু পোস্টার ঝুলানো ও পৌরসদরে একটি শোডাউন করার মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছে তার প্রচারণা।

নির্বাচনী লড়াইয়ে শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলেও দলীয় নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা করে ভোট কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতির হার বাড়িয়ে জনতার ভোটে নির্বাচীত হবার স্বপ্ন নিয়ে এড. মো. আমিরুল আলম মিলন প্রতিদিন জেলা-উপজেলা নেতাদের নিয়ে ছুটে চলছেন মোরেলগঞ্জ-শরণখোলার প্রত্যন্ত জনপদে।

ছাত্র রাজনীতি থেকে উঠে আসা জাতীয় নেতা এড. মো. আমিরুল আলম মিলন একজন কর্মীবান্দব, জনদরদী, সৎ, ত্যাগী ও পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হবার সুবাদে দলীয় নেতা-কর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষের কাছে রয়েছে তার একটি আলাদা গ্রহন যোগ্যতা। এ গ্রহণ যোগ্যতাকে কাজে লাগিয়ে তিনি ভোট কেন্দ্র বিমুখ ভোটারদেরকে কেন্দ্র মুখি করতে প্রতিনিয়ত ব্যস্ত সময় পার করছেন। তিনি দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে প্রতিদিনই তিনি একাধিক সভা-সমাবেশে অংশ গ্রহন করছেন।

তিনি যেখানেই যাচ্ছেন সেখানেই জনতার স্বতঃস্ফূর্ততা লাখ করা যাচ্ছে। ওইসব এলাকায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত পথ সভাগুলো দলীয় নেতা-কর্মী ও সাধারণ জনতার অংশগ্রহনে পরিনত হচ্ছে জনতার মিলন মেলায়। দীর্ঘদিন ধরে দলের অবহেলিত তৃণমূল নেতাকর্মী ও শান্তি প্রিয় জনতা তাদের প্রানের মানুষ এড. আমিরুল আলম মিলনকে কাছে পেয়ে ফুলে ফুলে শুভেচ্ছা জানিয়ে ভালোবাসায় শিক্ত করছেন। মিছিলে মিছিলে জনতার ঢলে পথসভাগুলো কানায় কানায় পরিপূর্ণ হওয়ায় পরিনত হচ্ছে জনতার মিলন মেলায়।

সোনালীনিউজ/আরআইএম/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue