বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬

শ্রীলঙ্কার রুপকথার নায়ক অরবিন্দ ডি সিলভা

রবিউল ইসলাম বিদ্যুৎ | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২০ মে ২০১৯, সোমবার ০৯:৪৭ পিএম

শ্রীলঙ্কার রুপকথার নায়ক অরবিন্দ ডি সিলভা

ঢাকা: ১৯৯৬ বিশ্বকাপে শ্রীলংকার সাফল্য ছিল অনেকটা রুপকথার মতো। অর্জুনা রানাতুঙ্গার হাত ধরে সেই রুপকথার জন্ম দিয়েছিলেন এক ঝাঁক উঠতি তারকা। ব্যতিক্রম ছিলেন কেবল রানাতুঙ্গা, রোশান মহানামা ও অরবিন্দ ডি সিলভা। সেবার উপমহাদেশেই বসেছিল ষষ্ঠ বিশ্বকাপের আসর। আয়োজক ছিল ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা।

ভারত-পাকিস্তান ধর্তব্যর মধ্যে থাকলেও এই তালিকায় কখনোই ছিল না শ্রীলঙ্কার নাম। কিন্তু রানাতুঙ্গার হাত ধরে বিশ্বকাপ ঘরে তুলে শেষ হাসি হাসলো লঙ্কানরাই। রানাতুঙ্গা যদি হন মহানায়ক হন তবে নায়ক বলতেই হবে অরবিন্দ ডি সিলভাকে। ইডেনে ভারতের বিপক্ষে সেমিফাইনালের পর লাহোরের ফাইনালে বলে ব্যাটে সমান পারফর্ম করে লঙ্কানদের ক্রিকেট ইতিহাস সারা বিশ্বের কাছে উঁচুতে তুলে ধরেছেন।

১৭ মার্চ, ১৯৯৬, লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ডি সিলভা কিভাবে লঙ্কানদের শিরোপাল্লাসে ভাসালেন?  সেদিন রানাতুঙ্গা টস জিতলেন বটে, কিন্তু আগে ব্যাট না নিয়ে বেছে নিলেন ফিল্ডিং। তার এই সিদ্ধান্তু বুমেরাং হতে যাচ্ছিল অসি অধিনায়ক মার্ক টেলরের  কারণে। বিচক্ষণ রানাতুঙ্গা বল তুলে দিলেন ডি সিলভার হাতে। বিধ্বংসী হয়ে ওঠা টেলরকে (৭৪) তো তিনি ফেরালেনই, এর কিছুক্ষণ পর রিকি পন্টিংকেও (১২) সরাসরি বোল্ড করে ড্রেসিংরুমের পথ দেখিয়ে দিলেন।

এরমাঝে আবার শেন ওয়ার্নকে (২) ফেরান মুত্তিয়া মুরালিধরণ। উইকেটে থিতু হতে গিয়েও পারলেন না স্টিভ ওয়াহ (১৩)। কুমারা ধর্মসেনার বলে দারুন এক ক্যাচ লুফে নেন ডি সিলভা। তাই ২ উইকেটে ১৩৭ থেকে অস্ট্রেলিয়া মুহূর্তেই পরিণত হয় ৫ উইকেটে ১৭০।

অস্ট্রেলিয়া নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৪২ রান তুলতে পারে শেষের দিকে মাইকেল বেভানের অপরাজিত ৩৬ রানের কল্যাণে। ৪২ রানে ৩ উইকেট নিয়ে শ্রীলংকার সবচেয়ে সফল বোলারের নাম ডি সিলভা।

২৪৩ রান তাড়া করতে নেমে ২৩ রানে দুই ওপেনার সনাৎ জয়াসুরিয়া এবং রমেশ কালুভিথারানাকে হারিয়ে রীতিমতো কাঁপছিল লঙ্কানরা। ওই পর্যন্তই। এর পরের গল্প শুধুই ডি সিলভার (১০৭*)। আর পার্শ্ব নায়কের ভূমিকায় ছিলেন আসানকা গুরু সিনহা (৬৫) এবং রানাতুঙ্গা (৪৭*)।

অস্ট্রেলিয়ার দর্পকে এক হাতে চূর্ণ করেছেন ডি সিলভা। কোনও অসি বোলারই তাকে টলাতে পারেননি। ১২৪ বলে ১৩ চারে অপরাজিত ১০৭ রানের ইনিংস খেলে বলতে গেলে অস্ট্রেলিয়ার আরেকটি বিশ্বকাপের স্বপ্ন একাই গুঁড়িয়ে দিয়েছেন ডি সিলভা। শেষ পর্যন্ত ২২ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটে জিতে প্রথমবার বিশ্বকাপ ট্রফি উঁচুতে তুলে ধরল শ্রীলঙ্কা। আর রুপকথার নায়ক হয়ে থাকলেন অরবিন্দ ডি সিলভা।

 সোনালীনিউজ/আরআইবি/জেডআই