মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

সংসার চালাতে একহাতে বাইক, একি করলেন সার্জেন্ট!

নিউজ ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৩ জুন ২০১৯, রবিবার ০৩:৫৩ পিএম

সংসার চালাতে একহাতে বাইক, একি করলেন সার্জেন্ট!

ঢাকা: প্রথমে চাকরি করতেন কল সেন্টারে। একহাতে লেখার গতি কম হওয়ায় সেখানে থিতু হতে পারেননি। পরে অন্য কোনো চাকরি না পেয়ে এক হাত নিয়ে খাবার ডেলিভারি দিতে নেমে পড়নে। বাইকে!

বছর ত্রিশের সমীরণের এমন লড়াই শুধু একদিন নয়, প্রতিদিন তাকে বাইক চালিয়ে খাবার সরবরাহ করতে হয়। সমীরণের সন্ধান মিলেছে ভারতীয় গণমাধ্যমের কল্যাণে। কলকাতার পার্ক স্ট্রিট মোড়ে সাউথ ট্রাফিক গার্ডের এক সার্জেন্ট তাকে প্রথম দেখতে পান।

সার্জেন্ট অসীম বারি বলছিলেন তাকে খুঁজে পাওয়ার কথা, ‘প্রথমে চমকে যাই। সবাই যেখানে ধরা পড়ছে বুঝতে পেরে ইউটার্ন নিয়ে পালাচ্ছিল। ছেলেটি চুপচাপ এদিকেই আসছিল। তাকে থামিয়ে লজ্জায় পড়ে যাই। দেখি এক হাতের কব্জি নেই।’

এক হাতে বাইক চালাতে ভয় লাগে না? একগাল হেসে সমীরণ বলেন, ‘ভয় তো লাগেই। তবু তো বাঁচতে হবে। রোজগার না করলে খাব কী। একহাতে তাই খুব বেশি গতিতে বাইক চালাই না।’

সাধারণত একহাতে বাইক চালালে ভারতীয় ট্রাফিক আইন অনুযায়ী তা ডেঞ্জারাস ড্রাইভিংয়ের ধারায় পড়ে। তাতে মোটা টাকা জরিমানাও হয়। সমীরণের এমন কাজে বকাঝকা তো দূরের কথা, তাকে নিজের মোবাইল নম্বর দিয়েছেন সার্জেন্ট অসীম বারি।

বললেন, ‘তার এই জীবনধারণকে আমি কুর্নিশ করি। মোটর ভেহিক্যালস অ্যাক্টের কোনও ধারা নেই যেখানে আমি ওকে শাস্তি দিতে পারি। জীবনযুদ্ধে প্রত্যয়ী এক যুবক। ও আরও এগিয়ে চলুক।’

মা সন্ধ্যা মণ্ডল, বাবা গোপাল মণ্ডল ছাড়াও সমীরণের বাড়িতে রয়েছেন দুই ভাই।


সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue