বুধবার, ২২ মে, ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

সত্যি বাংলাদেশে খেলতে আসবে লিভারপুল?

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০২ মার্চ ২০১৯, শনিবার ০৮:১৬ পিএম

সত্যি বাংলাদেশে খেলতে আসবে লিভারপুল?

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: ক্লাব ফুটবলে জনপ্রিয় একটি নাম লিভারপুল। সারা বিশ্বের ছড়িয়ে রয়েছে ক্লাবটির অগনিত ভক্ত-সমর্থক। ফুটবল প্রেমী বাংলাদেশও তার থেকে ব্যাতিক্রম নয়। লাল সবুজের দেশেও রয়েছে লাল রঙা জার্সিওয়ালা লিভারপুলের অনেক সমর্থক। আর আশার পালে হাওয়া লেগেছে সেখানেই। তাছাড়া প্রাক-মৌসুমের কোনো ম্যাচ খেলতে অনেক দেশেই সফর করে থাকে ইংলিশ ক্লাবটি। সেই বিবেচনায় হয়তো অদুর ভবিষ্যতে বাংলাদেশে আসতে পারে লিভারপুল।   

যারা লিভারপুলের সমর্থক তারা নিশ্চয় খেয়াল করেছেন ক্লাবটির জার্সি দেখতে কেমন আর সেখানে কি লিখা আছে। জার্সির সামনে বুকের উপরে লিখা রয়েছে স্টান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের নাম। এই ব্যাংকটি তাদের পৃষ্ঠপোষক। বাংলাদেশেও রয়েছে স্টান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের কার্যক্রম। দেশজুড়ে রয়েছে অনেক শাখা। ব্যাংকটির উদ্যোগে প্রায় প্রতি বছরই লিভারপুলের সাবেক কোনও ফুটবলারকে বাংলাদেশে আমন্ত্রন জানানো হয়।  

তারই ধারাবাহিকতায় এবার বাংলাদেশের পা রেখেছেন লিভারপুল ঈশ্বর উপাধি পাওয়া সাবেক ইংলিশ স্ট্রাইকার রবি ফাওলার। ব্যাস্ত কমুসূচির মাঝে শুক্রবার তিনি হাজির হয়েছিলেন বাংলাদেশ হ্যান্ডবল স্টেডিয়াম মাঠে। সেখানেই গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে কথা হয় এই ক্লাব কিংবদন্তির।  

রবি ফাওলারকে প্রশ্ন করা হলো প্রাক-মৌসুমের কোনো ম্যাচ খেলার জন্য লিভারপুলের দলকে বাংলাদেশে নিয়ে আসা যায় কি না? উত্তরে তিনি প্রথমে রসিকতা করেন, ‘কেন আমি এসেছি বলে আপনারা খুশি নন?’ এরপর ফাওলার বললেন, ‘সম্ভাবনা যে একদমই নেই তা বলব না। লিভারপুল সব সময়েই ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় ভিন্ন ভিন্ন দেশের ভক্তদের সঙ্গে দেখার করার বিষয়টাকে প্রাধান্য দেয়। আমার মনে হয় এ বিষয়ে পৃষ্ঠপোষকেরা একটা ভালো ভূমিকা পালন করতে পারে। এর মধ্যেই এশিয়ার কিছু দেশে লিভারপুল প্রাক-মৌসুম ম্যাচ খেলার জন্য এসেছে (থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া)। তাই সময় সুযোগ হলে একদিন হয়তো লিভারপুলের পুরো দল বাংলাদেশে এসে খেলেও যেতে পারে!’

লিভারপুলের কিংবদন্তিদের বিশ্বজুড়ে সমর্থকদের কাছে নিয়ে যাওয়ার প্রকল্পের অংশ হিসেবে গত বছর জন বার্নসকে বাংলাদেশে এনেছিল স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক। এবার আনা হয়েছে ফাওলারকে। এই প্রথম বাংলাদেশে আজ রাতেই ফিরে যাচ্ছেন তিনি। ব্যস্ত কর্মসূচির মধ্যে বাংলাদেশকে যতটুকু দেখেছেন তাতেই দিয়ে গেলেন অতিথিপরায়নের সার্টিফিকেট।

কেমন লাগল বাংলাদেশ? জবাবে ফাওলার বলেন, ‘সব সময় ভিন্ন ভিন্ন দেশে গিয়ে লিভারপুল সমর্থকদের সঙ্গে দেখা করতে পছন্দ করি আমি। বাংলাদেশে এসে অসাধারণ লাগছে আমার। এককথায় আমি মুগ্ধ এখানে এসে। সময় সুযোগ পেলে আবার অবশ্যই আসব এখানে!’

সব শেষে বাংলাদেশের ভক্ত সমর্থকদের জন্য ফাওলারের কণ্ঠ থেকে ঝরল কৃতজ্ঞতা, ‘আমার মনে হয় না আমি বাংলাদেশি ভক্তদের যথেষ্ট ধন্যবাদ দিতে পারব। আমি কৃতজ্ঞ এখানে আসতে পেরে। কৃতজ্ঞ আপনাদের সমর্থন পেয়ে। বছরের পর বছর আপনারা দলটার প্রতি বিশ্বাস রেখে চলেছেন, সমর্থন জুগিয়ে চলেছেন। আমরা ঋণী।’

সোনালীনিউজ/ঢাকা/জেডআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue