মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৭ ফাল্গুন ১৪২৫

সাকিব জামালের তিনটি প্রেম-বসন্তের কবিতা

সাকিব জামাল | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার ১১:৪৬ এএম

সাকিব জামালের তিনটি প্রেম-বসন্তের কবিতা

তবুও বসন্ত ভালোবাসি

বসন্ত এলো বলে- ডাকলো পাখি, ফুটলো ফুল,
বাসন্তী শাড়ির ভাজে উচ্ছল চঞ্চলা রমনীকূল-
প্রেমের খেয়া পাড়ি দেয় কেউ কেউ বিনে পয়সার গান শুনে!
আমি চেয়ে দেখি- বয়স আমার বেড়ছে বহু- এক এক গুণে!
একলা মনে-
             বসন্ত আসে না!
                      সাজে না কুঞ্জবনে ফুল-
                           ডাকে না পাখি ।
একলা মনে-
             বসন্ত আসে না!
                   নারীর কন্ঠ পাশে বাজে না-
                        জল ছলছল হয় আখি ।
তবুও বসন্ত ভালোবাসি ।
                ভালোবাসি- প্রকৃতির বুকের বসন্ত ।
                  ভালোবাসি- নারীর বুকের বসন্ত ।
মন না জুড়ায়, চোখ জুড়ানো এ বসন্ত- এ কি কম পাওনা একলা কবি'র?
কেউ বাঁচিয়ে রাখুক প্রেম । কেউ বাঁচিয়ে রাখুক বিরহ । থাকুক না বৈচিত্র্যমতা- বসন্তের ছবি'র ।

হঠাৎ বসন্ত বৃষ্টি

ঘূর্ণি ঘূর্ণি বায়-
মন তোরে নিয়েই ঘুরপাক খায় !
গড়িয়ে যায় মধু সময় ।
বৃষ্টি চায়না তার জল- তোরে ছাড়া হোক অপচয়!

ঠিক কয়েকটি বসন্ত আগে কোন এক ভালোবাসার বৃক্ষতলায়-
তোকে ভিজিয়ে সে, ছিলো শীতল-উষ্ণতায়!
আমিও ছিলাম-
বজ্রপাতের ভয়ে তোর বুকে আমাকে লুকিয়ে নিলাম ।

শীতলে উষ্ণতার তোর দৃষ্টি -
সেদিনও ছিলো হঠাৎ বসন্ত বৃষ্টি !

আবার বৃষ্টি এলো সন্ধ্যারাতে, মাঝপথে চলার-
ভিজেছি ! তবে এবারের বসন্ত বৃষ্টি ছিলো বিযন্নতার,
শুধুই শীতল, পোড়া মনের -
নীড় হারা বিরহী পাখির ডানা ঝাপটাবার !

তবে ছুঁয়ে গেছে, বলে গেছে, শনশন বাতাসের সুরে, ঘেটে অতীত স্মৃতিময়-
বৃষ্টি চায়না তার জল- তোরে ছাড়া হোক অপচয়!

আগামী হঠাৎ বসন্ত বৃষ্টি সন্ধ্যায়-
আসবে কি ? ভিজবে কি ? শীতল-উষ্ণতায় !

বসন্তবেলার সন্ধ্যারাতে

সেদিন বসন্তবেলার সন্ধ্যারাতে
অন্ধকারটা তখনো হয়নি ঘুটঘুটে
মেঠোপথের পাশে বসে ছিলাম একাকী
অদূর ঝোপঝাড়ে জ্বলছিল জোনাকী
একটা ধরেছিলাম বটে তোমার কপালে পড়াব বলে
ডেকেছিলাম তোমায় আমি অস্পষ্ট আবেগী কন্ঠে
হাতে নিয়ে মেঠোফুল । আসলে না যে
শুনতে কি তা পাওনি বলে !

নিস্তব্ধ ছিল সময়টা, বিরহ ছিল সঙ্গী
কল্পনাটা তবে রয়নি বন্দী, খুজে নিল সে তোমায়
ভালোবাসা দিয়ে করেছিল ব্যাকুল । মাথা রেখে কোলে
কি যেন কি বললে সে আধোআধো বো্লে
হাসলে কাঁদলে বললে আরও ভালোবাসো
এমনি মধুময় প্রতি সন্ধ্যারাতে ।

আকাশে তারারা ছিল, দিশেহারা হয়ে তারা
তোমার আমার খুনসুটি দেখে যেন উঠেছিল হেসে
সম্ভিত ফিরে পেয়ে দে‍খি- হ্যাঁ, আমি একাই আছি বসে
তুমি যে কখন চলে গেলে, না রেখে কিছু স্মৃতি ছাড়া ।

দক্ষিণে বাতাস এসে অবশেষে
বলল আসবে সে কল্পনালোক ছেড়ে
প্রতীক্ষার প্রহর গুণো একাকী তুমি
তারা, জোনাকী, আলোছায়া, মৃদুমন্দ সমীরণ নিয়ে পাশে ।

সোনালীনিউজ/এমটিআই